পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Հb ভারতবধ BBBBS BBBB BBBBB BBB BBSDDDSBB S BBBBS BBBB BBBB B BDD বিভূতি-প্রাপ্তিই বৈদিক মস্ত্রের উদেশ্ব । ঋষি মহর্ষিগণ—নরদেবতাগণ—ভগবৎ-সন্নিকর্য লাভের জন্য তন্ময় হইয়া, আত্ম-বিসর্জন করিয়া, যে ভাষায়, যে ভাবে, তাহাকে ডাকিয়াছিলেন, বৈদিকমন্ত্রে স্তোত্রাকারে তাহাই গ্রথিত হইয়া আছে। প্রথমে কোন কণ্ঠের কোন সুধাস্বরে সে ধ্বনি বিনির্গত হইয়াছিল, তাহ কেহই অনুসন্ধান করিয়া বলিতে পারেন না । ব্রাহ্মণ-সস্তান, ত্রিসন্ধ্য গায়ত্রী জপ করেন ; পিতা, পিতামহ, প্রপিতামহ বা অতিবৃন্ধপ্রপিতামহের নিকট হইতে তিনি সে মন্ত্র প্রাপ্ত হইতে পারেন । কিন্তু তিনি কখনই অনুসন্ধান করিয়া নির্ণয় করিতে পারেন না,-সেই গায়ত্রী মন্ত্র তাহারাই বা কোথা হইতে প্রাপ্ত হইয়াছিলেন ? যদি ততদুরও অগ্রসর হইতে পারেন, কিন্তু ঐ গায়ত্রী মন্ত্রের আদি কোথায়, কিছুতেই সন্ধান করিয়া পাইবেন না। বৈদিক-মন্ত্রাদি সম্বন্ধেও সেই একই কথা BBB BBS BBBS BB BB BBBS BBBBBS BBBBSBBB BB BBBBB S পুরুষানুক্রমে সে স্তোত্র সংসারে চলিয়া আসিতেছে । অন্য জাতির স্তোত্রাদির পরিবর্তন হইতে পারে ; কিন্তু আর্য্য-হিন্দুর সেই প্রাচীন স্তোত্রাদি কখনই পরিবর্তিত হইয়াছে বলিয়। মনে হয় না । তবে যে বেদের এক এক মণ্ডলে বা এক এক ভাগে ভিন্ন ভিন্ন ঋষির নাম দেখিতে পাই, তাহার কারণ অন্ত প্রকার । এক এক সংসারে এক এক প্রকারের মন্ত্র sBBBBBS BBBB BBS BB BB BBBBB BBS BBB BBBS KBBBBD BBBS BB জন্ত সেই সকল মন্ত্র যদি সংগ্রহ ও লিপিবদ্ধ করিয়া রাখিয়া যান, তাহা হইলে স্তাহাকে । BBBB BB BBB BBB BB BBB BBB BS SSS BBBB BBBB BBBB BB BBB প্রযোজ্য । পুরুষ-পরম্পরা যে যে মন্ত্র চলিয়া আসি তেছিল ; এক এক ঋষি সেই সেই মন্ত্র সংগ্ৰহ করিয়া রাখিয়াছিলেন ; পরবৰ্ত্তি-কালে তদনুসারেই সেই সেই মন্ত্রের রচয়িত। বলিয়া তাহারা অভিহিত হইয়াছেন। এক এক মগুলের স্তোত্রাদি এক এক ঋষির রচন} বলিয়। প্রতিপন্ন করার পক্ষে অন্য অন্তরায় ও যথেষ্ট আছে। একই মণ্ডলের স্বত্ত-সমূহে BBBSBBBB BBS BBBB BBBBBS BBYSBBD BBBBB BBB BBB BBB মন্ত্রাদি একত্র নিবদ্ধ হওয়ায়. এরূপ ঘটিয়াছে বলিয়া বিশ্বাস হইতে পারে । ফলতঃ, র্যাহাwের নামে বৈদিক মন্ত্রাদি প্রচলিত, তাহার। সেই সেই মন্ত্রের সংগ্ৰহ কৰ্ত্তা, পরন্তু রচয়িত। নছেন। বেদ যে অনাদি, বেদ যে অপৌরুষের, বেদ যে ব্রহ্মযুখনিঃস্থত,- তাত৷ বলার তাৎপৰ্য্যও এই বলিয়া মনে হয়। সে যন্ত্র কোন পুরুষ, কোন কালে, প্রথম উচ্চারণ করিয়াছিলেন,—সন্ধান করিয়া পাওয়া যায় না বলিয়াই, বেদ এইরূপ বিশেষণে । বিশেষিত হইয়া থাকে । কোথা হইতে আসিল, অথবা কি কারণে সংঘটিত হইল,-মানুষ যখন সন্ধান করিয়া নির্ণয় করিতে পারে না, তখনই তাহ দৈৰ’ নামে অভিহিত হয়। “অদৃষ্ট', 'বিধাতার লিপি’—সৰ্ব্বথ এই অর্থেই ব্যবহৃত দেখিতে পাই। একথা তত্বশু অস্বীকার করি না যে, একের যাহা অদৃষ্ট, অন্তের পক্ষে তাহা দৃষ্ট হইতে পারে-জান-কৰ্ম্মের তারতম্যানুসারে একই সামগ্ৰী পৰ্য্যায়ক্রমে দৃষ্টাদৃষ্ট-সংজ্ঞ লাভ করিতে পারে ; কিন্তু তাহ হইলেও, যাহা নিত্য-সত্য, তদ্বিষয়ে মতানৈক্যের সম্ভাবন কদািচ দেখিতে পাই না। বিশেষতঃ,