পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৪০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বংশ-পৰ্যায় আলোচন।। ৩৯১ । তৃতীয় মঙলে হুক্ত-প্রবর্তকগণের भाषा তাহার নাম পুনঃপুনঃ উল্লিখিত। সেই স্বক্ত-প্রবর্তক- - গণের মধ্যে র্তাহার দুই পুত্রের পর্য্যন্ত পরিচয় পাওয়া যায়। সে দুই পুত্রের এক জনের নাম—মধুচ্ছদা খৰি ; অপরের নাম—খত খৰি। ঋগ্বেদের প্রথম মঙলের প্রথম দশটা সুক্তেই বিশ্বামিক্স-পুত্র মধুচ্ছদ ঋষির নাম আছে। এখন, ঋগ্বেদের এই বিশ্বামিত্র এবং রামায়ণ, মহাভারত ও পুরাণ-পরম্পরার বিশ্বামিত্র, একই ব্যক্তি কিনা—-কে নির্ণয় করিবে ? বংশ-পৰ্য্যায় আলোচনায় স্থৰ্য্য-বংশের সহিত চন্দ্রবংশের সম্বন্ধ-তত্ত্ব নির্ণয় করিবার প্রয়াস পাইলে, আরও অধিকতর সমস্তার মধ্যে পতিত হইতে হয়। পুরাণ-পাঠক-মাত্রেই দশরথের সখা রোমপাদের সহিত পরিচিত আছেন । আমরাও বিবিধ বক্তব্য। একাধিক বার রোমপাদের নাম উল্লেখ করিয়াছি। কিন্তু রোমপাদ এবং দশরথ বংশ-লতার যে যে স্থান অধিকার করিয়া আছেন, তাহাতে গুহাদিগকে কখনই সম-সাময়িক বলিয়া মনে হয় না। রামায়ণের দশরথ অন্তত্রিংশ পৰ্য্যায়ে, । ব্ৰহ্মপুরাণের দশরথ অষ্ট-পঞ্চাশৎ পৰ্য্যায়ে এবং বিষ্ণুপুরাণের দশরথ সপ্তষষ্টিতম পৰ্য্যায়ে অবস্থিত ; কিন্তু অঙ্গ-দেশাধিপতি রোমপাদ, চন্দ্রবংশের বংশ-লতায়, হরিবংশে ষষ্ঠৱিংশ । পর্যায়ে, বিষ্ণুপুরাণে অষ্টাবিংশ পর্যায়ে, শ্ৰীমদ্ভাগবতে বড়বিংশ পর্যায়ে, অগ্নিপুরাণে ত্রিংশ পর্যায়ে, এবং ব্ৰহ্মপুরাণে চতুস্ত্রিংশ পৰ্য্যায়ে বিদ্যমান। এ পার্থক্য যদি মানিয়া লইতে হয়, তাহ হইলে দশরথ এবং রোমপাদকে সম-সাময়িক বলিয়। স্বীকার করা দুঃসাধ্য ! অথচ, সকল পুরাণেই তাহাদিগের সম-সাময়িকত্ব উল্লিখিত হইয়াছে। এ ক্ষেত্রে, চন্দ্রবংশের বংশ-লতায়, রোমপাদের পূৰ্ব্বপুরুষগণের অনেকের নাম যে বাদ পড়িয়া গিয়াছে, তাহ স্বতঃই অনুভূত হয় ৷ কীৰ্ত্তবীৰ্য্যার্জন রাবণকে বন্ধন করিয়াছিলেন ; স্ত্রীরামচন্দ্র রাবণের সংহার-সাধন করেন । এদিকে ত্যাবার, পরশুরামের হস্তে কীৰ্ত্তবীৰ্য্য নিহত হন এবং স্ত্রীরামচন্দ্রের নিকট পরশুরামের দর্প টুর্ণ হয়। এ হিসাবে, ঐরামচন্দ্র, পরশুরাম, রাবণ এবং কাৰ্ত্তবীৰ্য্যাঙ্গুন সকলেই সম-সাময়িক হওয়া সম্ভবপর। কিন্তু অন্তত্র আবার দেখিতে পাই-এঁরামচন্দ্রের বহুতর পূৰ্ব্ববৰ্ত্তী পুরুষ সগরের হস্তে কাৰ্ত্তবীৰ্য্যার্জনের তালজঙ্ঘ-নামধেয় পুত্ৰগণ নিহত হইয়াছিল। রামায়ণে, দশাধিক শততম সর্গে, লিখিত আছে —‘সগরের পিতার নাম-অসিত (পুরাণের মতে—বাহু বা বাহুক ) হৈহয়, তালজঙ্ঘ, পূর ও শশবিন্দু প্রভূতি রাজার। তাহার বিপক্ষ হইয়াছিলেন। রাজা অসিত যুদ্ধে সেই নৃপতি-চতুষ্টয়কে প্রথমে নিবারিত করিয়াছিলেন বটে ; কিন্তু পরিশেষে বিপক্ষবলের বাহুল্য-বশতঃ নগর পরিত্যাগ করিতে বাধ্য হইয়াছিলেন। বহুকাল পরে তাহার পুত্র সগর জন্মগ্রহণ করিয়া সেই পিতৃশক্রগণকে পরাভূত কুরেন। রামায়ণের এই বর্ণনাক্রমে হৈহয়, শশবিন্দু প্রভৃতি রাজগণ তালজজের সম-সাময়িক । কিন্তু বংশতালিকার প্রতি দৃষ্টিপাত করিলে প্রতীত হয়,-তালজজ্ঞের উদ্ধতন একাদশ পুরুৰে হৈহয় বিমান ! এস্থলে কি মীমাংসা সম্ভবপর,—কেহ নিৰ্ণয় করিতে পারেন কি ? এ সকল বিষয় আলোচনা করিলে বুঝিতে পারা যায়—একই বশে একাধিক হৈহয়, তালবন ও SSBBBB BBBBB BBBBBS DDBB BBD DD BBBB BBBBS BBBDDDD