পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৪৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূর্বানুস্থতি। 8\లసి নৈপুণ্যের পরিচয় । পৰ্ব্বত-গাত্র-খোদিত এতাদৃশ কারুকার্য্য-সম্পন্ন সুবৃহৎ মন্দির পৃথিবীতে অtার কোথাও নাই । ভারতীয় ভাস্কর্য্য ও স্থপতি-বিষ্কার পরিচয়ে যদি একমাত্র ইলোরার নাম আমরা উল্লেখ করি, তাহ হইলে আর কোনও পরিচয় প্রদানের আবখ্যক হয় ন! । পুরাণাদিতে ইলোরা--গ্রীষ্মেশ্বর নামক শিব-তীর্থ বলিয়। অভিহিত । এইরূপ গিরি-মন্দির ভারতবর্ষের আরও নানাস্থানে দৃষ্ট হয় । পুনার নিকট কারোলির গিরি-গুহ, সালসতি-গুহা, অযন্তার গিরি-গুহা-কত নাম করিব ? উদয়-গিরি ও খণ্ড-গিরিতে যে সকল শৈল-মন্দির খোদিত রহিয়াছে, তাহাই কি অল্প শিল্প-নৈপুণ্যের পরিচায়ক ? একাষকানন –ভুবনেশ্বরের মন্দির -সেও কত কাল পূৰ্ব্বে প্রতিষ্ঠিত । পুরুষোত্তমে জগন্নাথ-দেবের মন্দিরকেও পুর-কীৰ্ত্তি বলিয়া অভিহিত করিতে পারা যায়। অবশ্য এমন কথ। আমর বলিতেছি না যে, পুরুষোত্তমের বর্তমান মন্দিরই রাজ ইন্দ্র দুয়ের প্রতি পুঁত ! কিন্তু তাই ন হইলেও ঐ সকল মন্দিরের প্রাচীনত্ব বিষয়ে কোনই সংশয় নাই। যাই। হউক, ভারতবর্ষ যে বহু পূৰ্ব্বে স্থাপত্যে ও ভাস্কর্ঘ্যে প্রতিষ্ঠাপন্ন BBS BBBBSBBBBBB BBS BBBB BBB BB BB BBB BBBBBBSBBB নিৰ্ম্মাণ-প্রণালী ভারতবাসীরাই প্রথমে অবগত ছিলেন । ভারতবর্ষ হইতেই তাহ। BB BBBB BBBB BB S BBBBB BBBB BBBSAKBBBSBBB BBBBB চুড়া-সমূহ, ভারতবর্ষের বৌদ্ধ-মন্দির সমূহের চুড়া বা টোপর অনুকরণে নিৰ্ম্মিত হওয়া অসম্ভব নহে " * হ টার বলেন,—“বৰ্ত্তমান-কালে ইংরেজ শিল্পিগণ যে সকল সৌন্দৰ্য্যবৰ্দ্ধক শিল্প-নৈপুণ্যের পরিচয় দেন, তাহার অধিকাংশই ভারতের আদর্শে নিৰ্ম্মিত হইয়। থাকে।” 1 সারাসেন-জাতির খিলান-নিৰ্ম্মাণ-পদ্ধতি অনেকে প্রাচীনতম বলিয়। বিশ্বাস করেন । কিন্তু কর্ণেল টড প্রতিপন্ন করিয়াছেন,--“সারাসেনগণ প্রাচীন ভারতের নিকট হইতেই সেই খিলান-নিৰ্ম্মাণ-পদ্ধতি গ্রহণ করিয়াছিল।’’ : প্রাচীন-ভারত শিল্প-বিষয়ে যে বিশেষ উন্নতি লাভ করিয়াছিল, তাহfরও বহু নিদর্শন আছে । সুবর্ণময় অলঙ্কার ও উষ্ণশ, বিবিধ প্রকার মূল্যবান বস্ত্ৰাদি এবং মণি-মুক্ত-খচিত ভূষণাদির পরিচয় বেদাদি গ্রন্থেও দেপিতে পাই । যেমন স্থাপত্যে ও শিল্প-বিষয়ে, তেমনি গণিতে, জ্যোতিযে, সাহিত্যে, কাব্যে, ভারতের মৌলিকত্ব প্রতিপন্ন হয়। গণিতে ভারতবর্ষের মৌলিকত্ব— ‘লীলাবতী প্রভৃতি গ্রন্থে, ‘স্বৰ্য্য-সিদ্ধান্তে ত্রিকোনমিতির এবং ‘সুলভ-স্বত্রে জ্যামিতির পরিচয় পাওয়া যায়। মণিয়র উইলিয়মস ও প্রমুখ অধ্যাপকবর্গকে স্বীকার করিতে হইয়াছে,— বীজ-গণিত ও জ্যামিতির আবিষ্কারে এবং জ্যোতিৰ্ব্বিদ্যায় তাহার প্রয়োগে হিন্দুগণই

  • “It is, indeed, not improbable that our Western steeples owe their origin to the imitation of Budhistic topes.”—Professor Weber, Indian Literature.

+ “English decorative art, in our day, has borrowed largely fom Indian forms and patterns."--sir W. W. Hunter, Imperial Indian Gasetteer. * - + “The Saracen arch is of Hindu origin”—Col. Tod, Rajasthan. § “To the Hindus is due the invention of Algebra and Geometry ard their application to Astronomy"-Prof. Monier williams, Indian Wisdom. -