পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৫০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


जॉब्रङवर्ष । ، نيابية শাস্ত্র-গ্রন্থ রচনা করিতেছেন,—ইহা কখনই সম্ভবপর নহে। ইহার কোনও প্রমাণও পাওয়া যার না। কৃষক এবং কৃষি-কার্য্যের উন্নতির জন্য প্রার্থনা করিয়াছিলেন বলিয়া, জাৰ্য্য-হিন্দুমাত্রকে কখনই কৃষক-শ্রেণীর অন্তভূক্ত করা যাইতে পারে না। ব্রাহ্মণ-পুরোহিত যদি DDDBBB BBSBBSBBBBB BBBB BBBB BBBSBBDD BBB S BDD DBBB কি বুঝিতে হইবে,—পুরোহিত ব্রাহ্মণ স্বয়ংই সেই রোগাক্রান্ত ? এ সিদ্ধাস্তুও যেরূপ ভ্ৰমমূলক ; আর্য্য-হিন্দুগণ কৃষক ছিলেন এবং বেদ কৃষকের গান,-এ সিদ্ধান্তও তদ্রুপ ভ্ৰাপ্ত-বুদ্ধির পরিচায়ক। পাঠের এবং অর্থোদ্ধারের ব্যতিক্রমেও অনেকের ভ্রম-সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া সম্ভবপর। সাধারণ সংস্কৃত-সাহিত্যে একই শব্দের নানা অর্থ দেখিতে পাওয়া যায়। বৈদিক সুক্তের অর্থ-পরিগ্রহ—আরও দুরূহ ব্যাপার। অর্থ-বিপর্যয় যে কতই ঘটিয়াছে, তাহ বলিয়া শেষ করা যায় না। বিভিন্ন মতের বিভিন্ন ধৰ্ম্ম-সম্প্রদায়ের স্বাক্টর জন্যতম কারণও—বৈদিক হুক্তের অর্থাস্তর গ্রহণ। পরবৰ্ত্তি-কালে, কেহ যে জ্ঞানের eBBB BBB BBB BBBBS BBB B BBB BBB BSBB BBBDS BBD কেহ যে ভক্তির মাহাক্স্যে বিভোর হইয়াছেন ;—বৈদিক সুক্তের অংশবিশেষের সাহায্যগ্রহণে আপনাপন মত-প্রতিষ্ঠা-চেষ্টাই তাহার হেতুভূত। যাহা হউক, ধৰ্ম্মবিষয়ে আৰ্য্যহিন্দুগণ কতদূর উন্নত হইয়াছিলেন, সকল ধৰ্ম্মের সার সামগ্রী কিরূপভাবে তাহাদের অধিগত হইয়া ছিল,-বেদে তদ্বিষয়ের অভিজ্ঞতা লাভ হয়। আর্য্য-হিন্দুগণের আচার-ব্যবহারের পরিচয়ও বেদে দেখিতে পাওয়া যায় । অধুনা বেদের যে সকল সংস্করণ এতদ্দেশে প্রচারিত ও ভাবাস্তরিত হইয়া বিরাজমান আছে, তাহা হইতেই সকল বিষয়ের অাতাল পাইতে পারি। অধুনা সভ্যজাতির সংসার-বন্ধন যেরূপ শৃঙ্খলাবদ্ধ, প্রাচীন আর্য্য-হিন্দুগণই তাহার আদর্শ-স্থানীয় ছিলেন । এখন যেমন সংসারের প্রধান ব্যক্তিই সংসারের সর্বময় কৰ্ত্তা, তখনও সেই তা বই বিদ্যমান ছিল । এখন যেমন সংসার ও বিবাহ-পদ্ধতি প্রচলিত আছে, তাহারও আদর্শ–প্রাচীন আৰ্য্য-হিন্দুগণের সংসারে ও বিবাহ-পদ্ধতিতে দেখিতে পাই । এখন যেমন সভ্যজাতির মধ্যে স্ত্রী-পুরুষ-ঘটিত ব্যভিচার দোষাবহ বলিয়। গণ্য হইয়া থাকে, তখনও স্ত্রী-পুরুখের মধ্যে যথেচ্ছাচার-সম্বন্ধ তদ্রুপ দোষাবহ ছিল । এখন যেমন বিশেষ বিশেষ পূজা-পাৰ্ব্বণে সতী সহধৰ্ম্মিণী-রূপে স্বামীর সহিত যাগযজ্ঞে ধৰ্ম্মান্থ • *ানে রত হইয় থাকেন, বৈদিক কালেই তাহার আদর্শ দেখিতে পাই ; ঋগ্বেদের প্রথম ও পঞ্চম মণ্ডলে, হিন্দু-দম্পতি ইন্দ্রের উপাসনায় ব্ৰতী রহিয়াছেন দেখিতে পাওয়া স্বায় । পিতার পরিচয়ে পুত্রের পরিচয়, বৈদিক কালের জাৰ্য্য-হিন্দু-গণেরই অমুস্থতি মাত্র। হিন্দুর সংসারে এখন যেমন পিতাই ভরণ-পোবণ-দাতা রক্ষাকৰ্ত্ত, তখনও তাহাই ছিল। এখন যেমন জননী সস্তান-পালনে ও সংসার-পরিচর্য্যায় ব্রতী चारश्न, ठाश७ সেই বেদোক্ত কালের জাৰ্য্য-হিন্দুগণের পদাঙ্ক অনুসরণ মায়। এখন যেমন, হিন্দুর সংসারে পুত্র-পৌত্ৰাদি-সহ একান্নভূক্ত পরিবারের ব্যবস্থা জাছে বৈদিক কালেও সেই প্রথা প্রচলিত ছিল ; প্রথম মণ্ডলের শততম চতুর্দশ হুক্তে দেখিতে পাই, কুৎস ঋষি রুত্রের নিকট প্রার্থনা করিতেছেন,—“হে অমর রুজ ।