পাতা:প্রকৃতির প্রতিশোধ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম দৃশ্য গুহা সন্ন্যাসী কোথা দিন, কোথা রাত্রি, কোথা বর্ষ মাস ! অবিশ্রাম কালস্রোত কোথায় বহিছে স্থষ্টি যেথা ভাসিতেছে তৃণপুঞ্জসম! আঁধারে গুহার মাঝে রয়েছি একাকী, আপনাতে বসে অাছি আপনি অটল । অনাদি কালের রাত্রি সমাধিমগনা নিশ্বাস করিয়া রোধ পাশে বসে আছে । শিলার ফাটল দিয়া বিন্দু বিন্দু করি ঝরিয়া পড়িছে বারি আর্দ্র গুহাতলে । স্তব্ধ শীতজলে পড়ি অন্ধকার-মাঝে প্রাচীন ভেকের দল রয়েছে ঘুমায়ে । বাদুড় গুহায় পশি সুদূর হইতে অমানিশীথের বার্তা আনিছে বহিয়া । কখনো বা কোনো দিন কে জানে কেমনে একটি আলোর রেখা কোথা হতে আসে, দিবসের গুপ্তচর রজনীর মাঝে একটুকু উকি মেরে যায় পলাইয়া । বসে বসে প্রলয়ের মন্ত্র পড়িতেছি, তিল তিল জগতেরে ধবংস করিতেছি, সাধনা হয়েছে সিদ্ধ, কী আনন্দ আজি । জগৎ-কুয়াশা-মাঝে ছিনু মগ্ন হয়ে, অদৃশ্যে আঁধারে বসি সুতীক্ষ্ণ কিরণে ছিড়িয়া ফেলেছি সেই মায়া-আবরণ, > 0, > ○ ९ 0