পাতা:প্রকৃতির প্রতিশোধ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম দৃপ্ত বাসনার বহ্নিময় কশাঘাতে হায় পথে পথে ছুটিয়াছি পাগলের মতো । নিজের ছায়ারে নিজে বক্ষে ধরিবারে দিনরাত্রি করিয়াছি নিস্ফল প্রয়াস । সুখের বিদ্যুৎ দিয়া করিয়া আঘাত দুঃখের ঘনান্ধকারে দেছিস ফেলিয়া । বাসনারে ডেকে এনে প্রলোভন দিয়ে নিয়ে গিয়েছিস মহা তুর্ভিক্ষ-মাঝারে । খাদ্য বলে যাহা চায় ধূলিমুষ্টি হয়। তৃষ্ণার সলিলরাশি যায় বাষ্প হয়ে । প্রতিজ্ঞা করিনু শেষে যন্ত্রণায় জ্বলি এক দিন— এক দিন নেব প্রতিশোধ । সেই দিন হতে পশি গুহার মাঝারে সাধিয়াছি মহা হত্যা তাধারে বসিয়া । আজ সে প্রতিজ্ঞ মোর হয়েছে সফল । বধ করিয়াছি তোর স্নেহের সন্তানে, বিশ্ব ভস্ম হয়ে গেছে জ্ঞানচিতানলে । সেই ভস্মমুষ্টি আজি মাখিয়া শরীরে গুহার আঁধার হতে হইব বাহির । তোরি রঙ্গভূমিমাঝে বেড়াব গাহিয়া অপার আনন্দময় প্রতিশোধ-গান । দেখাব হৃদয় খুলে, কহিব তোমারে, এই দেখ তোর রাজ্য মরুভূমি আজি, তোর যারা দাস ছিল স্নেহ প্রেম দয়া শ্মশানে পড়িয়া আছে তাদের কঙ্কাল, প্রলয়ের রাজধানী বসেছে হেথায় । & O & Co. Wo 0 به وی\ a 0 ዋ ©