পাতা:প্রকৃতির প্রতিশোধ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দশম দৃশু আরো যেন দৃঢ় করে ধরি জড়াইয়া । সবাই চলিয়া যায় ভিন্ন ভিন্ন দিশে, অসীম জগতে মোরা কে কোথায় থাকি, মাঝে লোক-লোকান্তের ব্যবধান পড়ে । তবু কি গলায় দিবি মোহের বন্ধন ; স্থখ দুঃখ নিয়ে তবু করিবি কি খেলা ! যে রবে না তবু তারে রাখিবারে চাস । ওরে, আমি প্রতিদিন দেখিতেছি, যেন কে অামারে অবিরত আনিতেছে টেনে । প্রতিদিন যেন আমি ঘুরিয়া ঘুরিয়া জগৎ-চক্রের মাঝে যে তেছি পড়িতে— চারি দিকে জড়াইছে অশ্রুর বঁাধন, প্রতিদিন কমিতেছে চরণের বল । যাক ছিড়ে ! গেল ছিড়ে ! চল ছুটে চল । চল দূরে— যত দূরে চলে রে চরণ। কে ও আসে অশ্রুনেত্রে শূন্তগুহা-মাঝে, কে ওরে পশ্চাতে ডাকে ‘পিতা পিতা’ ব’লে ! ছিড়ে ফেল, ভেঙে ফেল চরণের বাধা— হেথা হতে চল ছুটে, আর দেরি নয় । ○ a (? O & & 0وا؟