পাতা:প্রকৃতির প্রতিশোধ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বাদশ দৃশ্য গুহার দ্বারে সন্ন্যাসী । এইখানে সব বুঝি শেষ হয়ে গেল ! যে ধ্যানে অনন্তকাল মগ্ন হব বলে আসন পাতিয়াছিনু বিশ্বের বাহিরে, আরম্ভ না হতে হতে ভেঙে গেল বুঝি ! তারি মুখ জাগে মনে সমাধিতে বসে, তারি মুখ হৃদয়ের প্রলয়-আঁধারে সহসা তারার মতে কোথা ফুটে ওঠে, সেই দিকে অঁাখি যেন বদ্ধ হয়ে থাকে, ক্রমে ক্রমে অন্ধকার মিলাইয়া যায়, জগতের দৃশ্ব ধীরে ফুটে ফুটে ওঠে— গাছপালা, সূর্যালোক, গৃহ, লোকজন কোথা হতে জেগে ওঠে গুহার মাঝারে । সদা মনে হয় বালা কোথায় না জানি, হয়তো সে গেছে চলে নগরে ভ্ৰমিতে, হয়তো কে অনাদর করেছে তাহারে, এসেছে সে র্কাদো-কাদো মুখখানি করে আমার বুকের কাছে লুকাইতে মাথা । এইখানে সব বুঝি শেষ হয়ে গেল ! মিছে ধ্যান, মিছে জ্ঞান, মিছে আশা মোর ! আকাশবিহারী পাখি উড়িত আকাশে— মাটি হতে ব্যাধ তারে মারিয়াছে বাণ, ক্রমেই মাটির পানে যেতেছে পড়িয়া— 8 ○ Ꮈ Ꭴtt