পাতা:প্রকৃতির প্রতিশোধ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


و 48 ত্রয়োদশ দৃশ্য অরণ্য ঝড়বৃষ্টি । রাত্রি সন্ন্যাসী । কে ওরে করুণ কণ্ঠে করে আর্তনাদ ! এখনো কানেতে কেন পশিছে আসিয়া ! প্রলয়ের শব্দে আজি কঁাপিছে ধরণী— বজ্রদন্ত কড়মড়ি ছুটিতেছে ঝড়, ক্ষুব্ধ সমুদ্রের মতো আঁধার অরণ্য " তরুর তরঙ্গ লয়ে উঠিছে পড়িছে ! তবুও ঝটিকা, তোর বজ্রগীত গেয়ে ক্ষুদ্র এক বালিকার ক্ষীণ কণ্ঠধ্বনি পারিলি নে ডুবাইতে ! এখনো শুনি যে ! ওই-যে সে কাদিতেছে করুণ স্বরেতে, S () নিশীথের বুক ফেটে উঠিছে সে ধ্বনি । কোথা যাব, কোথা যাব, কোন অন্ধকারে— জগতের কোন প্রান্তে, নিশীথের বুকে— ধরণীর কোন ঘোর, ঘোর গর্ভতলে— এ ধ্বনি কোথায় গেলে পশিবে না কানে ! > ? যাই ছুটে আরো, আরো অরণ্যের মাঝে— মহাকায় তরুদের জটিলতা-মাঝে দিগবিদিক হারাইয়া মগ্ন হয়ে যাই ।