পাতা:প্রবন্ধ পুস্তক-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভালবাসার অত্যাচার। ২৩ সত্য কি পালনীয় ? যদি কেহ, দয়ার প্ররোচনায় মুহৃদকে বিনাদোষে বধ করিতে সত্য করে, তবে সে সত্য কি পালনীয় ? যে কেহ ঘোরতর মহাপাতক করিতে সত্য করে, তাহার সত্য কি পালনীয় ? যেখানে সত্য নজনাপেক্ষা সত্য রক্ষায় অধিক ঘনিষ্ট, সেখানে সত্য রাখিবে, না সত্য ভঙ্গ করিবে ? অনেকে বলিবেন, সেখানেও সত্য পালনীয়, কেন না, সত্য নিত্যধৰ্ম্ম, অবস্থাভেদে তাহ পুণ্যত্ব পাপত্ব প্রাপ্ত হয় না। যদি পাপ পুণ্যেয় এমন নিয়ম কর, যে যখন যাহা কৰ্ম্মকৰ্ত্তার বিবেচনায় ইষ্টকারক তাহাই কৰ্ত্তব্য ; যাহা তাহার তাৎকালিক বিবেচনায় অনিষ্টকারক তাহ অকৰ্ত্তব্য, তবে পুণ্য পাপের প্রভেদ থাকে ন!— লোকে পুণ্য বলিয়া ঘোরতর মহাপাতকে প্রবৃত্ত হইতে পারে । আমরা এ তত্ত্বের মীমাংস এ স্থলে করিব ন!—কেন না হিতৱাদীরা ইহার এক প্রকার মীমাংসা করিয়া রাথিয়াছেন। স্থল কথার উত্তর দিব । যখন এরূপ মীমাংসার গোলযোগ হইবে, তখন ধৰ্ম্মনীতির -যে মূল স্বত্র সংস্থাপিত হইয়াছে, তাহার দ্বারা পরীক্ষা কর। সত্য কি সৰ্ব্বত্র পালনীয় ? এ কথার মীমাংসা করিবার আগে জিজ্ঞাস্য, সত্য পালনীয় কেন ? সত্য পালনের একটি মূল ধৰ্ম্মনীতিতে, একটি মূল আত্ম সংস্কারনীতিতে। আমরা আত্ম সংস্কার নীতিকে ধৰ্ম্মনীতির অংশ বলিয়া পরিগণিত করিতে অস্বীকার করিয়াছি; ধৰ্ম্মনীতির মূলই দেখিব। বিশেষষ্ঠজ্ঞ য়েয় ফল একই। ধৰ্ম্মনীতির মূল স্বত্র, পরের অনিষ্ট যাহাতে • হয়, তাহ অকৰ্ত্তব্য । সত্য ভঙ্গে পরের অমিষ্ট হয়, এজন্য সত্য পালনীয়। কিন্তু যখন এমন ঘটে, যে সত্য পালনে পরের গুরুতর অনিষ্ট, সত্য ভঙ্গে ততদুর নহে, তখন সত্য পালনীয়