পাতা:প্রবন্ধ পুস্তক-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জ্ঞান | २१ কের্ম না আকাশ কি তাহা আমরা জানি, এবং কুসুম কি তাহও জানি, মনের শক্তির দ্বারা উভয়ে সংযোগ করিতে পারি। কিন্তু সে জ্ঞান, দর্শনের উদ্দেশ্য নহে । তাহাঁ ভ্ৰমজ্ঞান। যথার্থ জ্ঞানই দর্শনের উদেশ্য। এই যথার্থ জ্ঞানকে প্রমাঙ্গান বা প্রমা প্রতীতি বলে । সেই যথার্থ জ্ঞান কি ? যাহা জানি, তাহাই জ্ঞান। যাহা জানি তাহ কি প্রকারে জানিয়াছি ? কতকগুলি বিযয় ইন্দ্রিয়ের সাক্ষাং সংযোগে জানিতে পারি। ঐ গৃহ, এই বৃক্ষ, ঐ নদী, এই পৰ্ব্বত, আমার সম্মুথে রহিয়াছে; তাহা আমি চক্ষে দেখিতে পাইতেছি, এজন্য জানি যে ঐ গৃহ, এই বৃক্ষ, ঐ নদী, এই পৰ্ব্বত আছে। অতএব জ্ঞাতব্য পদার্থের সঙ্গে চক্ষুরিন্দ্রিয়ের সংযোগে আমাদিগের এই জ্ঞান লব্ধ হইল। (১) ইহাকে চক্ষুষ প্রত্যক্ষ বলে। এইরূপ, গৃহমধ্যে থাকিয়া শুনিতে পাইলাম, মেঘ গৰ্জ্জিতেছে, পক্ষী ডাকিতেছে ; এখানে মেঘের ডাক, পক্ষীর রব আমরা কর্ণের দ্বারা প্রত্যক্ষ করিলাম। ইহ। শ্রাবণ প্রত্যক্ষ। এইরূপ চাক্ষুয়ু, শ্রাবণ, স্ত্ৰাণজ, ত্বাচ,এবং রাসন, পঞ্চেন্দ্রিয়ের সাধ্য পাঁচ প্রত্যক্ষ । মনও একটি ইন্ধিয় বলিয়া আর্য্য দার্শনিকের গণিয় থাকেন, অতএব র্তাহারা মানস প্রত্যক্ষের কথা বলেন । মন বহিরিন্দ্রির নহে । অন্তরিক্রিয়ের সঙ্গে বহিরিষয়ের সাক্ষাৎসংযোগ অসম্ভব। অতএব মানস প্রত্যক্ষে বহির্বিষয় অবগত হওয়া যায়না ; কিন্তু অন্তর্বিষয় জ্ঞান, মানস প্রত্যক্ষের দ্বারাই হইবে। • • (১) গৃহ, পৰ্ব্বতাদি দূরে রহিয়াছে—আমাদিগের চক্ষে সংলগ্ন নহে, তবে ইন্ত্রিয়ের সংযোগ হইল কি প্রকারে ? দৃষ্ট পদার্থ বিক্ষিপ্ত রশ্মির দ্বারা। ঐ রশ্মি আমাদিগের নয়ন ভ্যস্তরে প্রবেশ ० कब्रिtन शूटिं श्छ ।