পাতা:প্রবন্ধ পুস্তক-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 হিন্দুধর্মের নৈসর্গিক মূল। शूिल cश त्रैर्भृङ्ग श्रौकानि कद्विश्वttश्न, डिनि ७क्रश्नं वाञ्छश्च নহেন । মিল ইচ্ছাবিশিষ্ট, জগন্ধিৰ্মাতা স্বীকার করিয়াছেন। স্বীকার করিয়া ঐশিক স্বভাবেয় মীমাংসায় প্রবৃত্ত হইয়াছেন। ঈশ্বরবাদীরা সচরাচর ঈশ্বরের তিনটী গুণ বিশেষ রূপে নিৰ্ব্বাচন করিয়া থাকেন-শক্তি, জ্ঞান এবং দয়া । তাহাদিগের মতে ঈশ্বরের গুণমাত্র সীমাশূন্য—অনন্ত। অতএব ঈশ্বরের শক্তি, জ্ঞান, এবং দয়াও অনন্ত। ঈশ্বর সর্বশক্তিমান, সৰ্ব্বজ্ঞ, এবং शब्लॉभप्र । মিল এই মতের প্রতিবাদ করিয়াছেন। তিনি বলেন যে যেখানে জগতেয় নিৰ্ম্মাণকৌশল দেখিয়াই আমরা ঈশ্বরের অস্তিত্ব স্বীকার করিতেছি, সেই খানেই তাহার শক্তি যে অনন্ত नरश् उश्। शैक्लङ श्हेउत्श् । ८रुनम ििन जर्संश्वक्लिभान् র্তাহার কৌশলের প্রয়োজন কি ? কৌশল কোথায় প্রয়োজন হয় ? যেখানে কৌশল ব্যতীত ইঃসিদ্ধি হয় না,সেখানেই কৌশল প্রয়োজন হয়—যিনি সৰ্ব্বশক্তিমান, ইচ্ছায় সকলই করিতে পারেন, তাহার কৌশলের প্রয়োজন হয় না । কেবল ইচ্ছা বা জঞ্জিামাত্রে কৌশলের উদ্দেশ্য কৰ্ম্ম সিদ্ধ হইতে পারে। মদি মমুষ্যের এরূপ শক্তি থাকিত যে, সে কেবল ঘড়ির ডায়ল প্লেটের উপয় কাটা বসাইয়া দিলেই কাটা নিয়মমত চলিত্ত তবে কখন মনুষ্য কৌশলবিলম্বন করিয়া ঘড়ির প্রিঙ্গের উপর ঞ্জিগ এবং হইলের উপর হুইল গড়িত না। অতএব ঈশ্বর যে সৰ্ব্বশক্তিমানু নহেন, ইহা সিদ্ধ। একথার দুই একটা উত্তর আছে কিন্তু হিন্দুধর্মের নৈসর্গিক ভিত্তির অমুসন্ধান আমাদের মুখ্য উদ্দেশ্য, অতএব সে সকল manifested to us through all phenomena has been growing ever clearer.—First Principles. p. 108.'