প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:প্রহাসিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মাল্যতত্ত্ব জগার আঙুল মালা যখন গাথে বোকা মনের একটা কিছু মেশায় তারই সাথে । তারই পরশ আমার দেহ পরশ করে যবে রস কিছু তার পাই যে অনুভবে । এ-সব কথা বলতে মানি ভয় তোমার মতো নব্যজনের পাছে মনে হয়— এ বাণী বস্তুত কেবলমাত্র উচ্চদরের উপদেশের ছুতে, ডাইডাকটিক আখ্যা দিয়ে যারে নিন্দ করে নতুন অলংকারে । গা ছুয়ে তোর কই, কবিই আমি, উপদেষ্ট নই। বলি-পড়া বাকলওয়ালা বিদেশী ঐ গাছে গন্ধবিহীন মুকুল ধরে আছে আঁকাবঁকা ডালের ডগা ধূসর রঙে ছেয়ে— যদি বলি ওটাই ভালো মাধবিকার চেয়ে, দোহাই তোমার কুরঙ্গনয়নী, ব্যঙ্গকুটিল-দুর্বাক্য-চয়নী, ভেবো না গো, পূৰ্ণচন্দ্রমুখী, হরিজনের প্রপাগাণ্ড দিচ্ছে বুঝি উকি । এতদিন তো ছন্দে-বাধা অনেক কলরবে অনেকরকম রঙ-চড়ানো স্তবে @>