পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (প্রথম ভাগ).djvu/২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজসিংহ মবারক বলিল, “পাপপুণ্য আল্লার হুকুম।” । জেব। আল্লা এ সকল হুকুম ছোটলোকের জন্য করিয়াছেন-কাফেরের জন্য । আমি কি হিন্দুদের বামুনের মেয়ে, না রাজপুতের মেয়ে যে, এক স্বামী করিয়া, চিরকাল দাসীত্ব করিয়া, শেষ আগুনে পুড়িয়া মরিব ? আল্লা যদি আমার জন্য সেই বিধি করিতেন, তবে অামাকে কখনও বাদশাহজাদী করিতেন না । মবারক একেবারে আকাশ হইতে পড়িল— এরূপ কদৰ্য্য কথা সে কখনও শুনে নাই। সেই পাপশ্রোতোময়ী দিল্লীতেও কখনও শুনে নাই । অন্ত কেহ এ কথা তাহার সম্মুখে বলিলে সে বলিত, “তুমি বজাহত হইয়া মর " কিন্তু জেব-উন্নিসার রূপের সমুদ্রে সে ডুবিয়া গিয়াছিল—তাহার আর দিগ্বিদিকৃজ্ঞান ছিল না। সে কেবল বিস্মিত হইয়া রহিল । জেব-উল্লিস বলিতে লাগিল, “ও কথা যাক্ । অন্ত কথা আছে । ও কথা যেন আর কখনও না শুনি । শুনি যদি—” - - মবারক । আমাকে ভয় দেখাইবার কি প্রয়োজন ? আমি জানি, তুমি যাহার উপর অপ্রসন্ন হইবে, এক দণ্ড তাহার কাধে মাথা থাকিবে না । কিন্তু ইহাও বোধ হয় তুমি জান যে, মবারক মৃত্যুকে ভয় করে না । জেব-উল্লিস। । মরণের অপেক্ষা আর কি দণ্ড নষ্ট * মবা । আছে—তোমার বিচ্ছেদ । জেব-উন্নিসা । বার বার অসঙ্গত কথা বলিলে তাহাই ঘটিতে পারে । মবারক বুঝিলেন যে, একটা ঘটলে দুইটাই ঘটিবে । তিনি যদি পাপিষ্ঠ। বলিয়া জেব-উন্নিসাকে পরিত্যাগ করেন, তবে তাহাকে নিশ্চিত নিহত হইতে হইবে । জেব-উগ্লিস মোগলরাজ্যে সৰ্ব্বে-সৰ্ব্বা, খোদ ঔরঙ্গজেব তাহার আজ্ঞাকারী । কিন্তু সে জন্য মবারক দুঃখিত নহেন । তাহার দুঃখ এই যে, তিনি বাদশাহজাদীর রূপে মুগ্ধ, তাহাকে পরিত্যাগ করিবার কিছুমাত্র সাধ্য নাই ; এই পাপপঙ্ক হইতে উদ্ধত হুইবার তাহার শক্তি নাই । অতএব মবারক বিনীতভাবে বলিল, “আপনি ইচ্ছাক্রমে যতটুকু দয়া করিবেন, তাহাতেই আমার জীবন পবিত্র। আমি যে আরও দুরাকাঙ্ক রাখি --তাছা দরিদ্রের ধৰ্ম্ম বলিয়া জানিবেন। কোন দরিদ্র না জুনিয়ার বাদশাহী কামনা করে ?” 〉の তখন প্রসন্ন হুইয়া শাহজাদী মবারককে আসব পুরস্কার করিলেন। মধুর প্রণয়সম্ভাষণের পর র্তাহাকে অতির ও পান দিয়া বিদায় করিলেন । মবারক রঙমহাল হইতে নির্গত হইবার পূৰ্ব্বেই দরিয়া বিবি আসিয়া তাহাকে ধৃত করিল। অন্সের অশ্রাব্য স্বরে জিজ্ঞাসা করিল, “কেমন, রাজপুত্রীর সঙ্গে বিবাহ স্থির হইল ?” মধারক বিস্মিত হইয়া জিজ্ঞাসা করিল, “তুই কে ?” দরিয়া । সেই দরিয়া । মবা । দুষ মন্‌ ! সয়তান ! তুই এখানে কেন ? দরিয়া । জান না, আমি সংবাদ বেচি ? মবারক শিঙ্গরিল । দরিয়া বিবি বলিল, “রাজপুত্রীর সঙ্গে বিবাহ কি হইবে ?” মব: রাজপুত্ৰী কে ? দরিয়া । শাহজাদী জেব-উল্লিস বেগম সাহেবা । শাহজাদী কি রাজপুত্ৰী নহে ? মবা । আমি তোকে এইখানে খুন করিব । দরিয়া । তবে আমি হাল্লা করি । মবা । আচ্ছ, না হয়, খুন নাই করিলাম । তুই কার কাছে খবর বেচিতে আসিয়াছিল, বলু। দরিয়া । বলিব বলিয়াই দাড়াইয়া হজরৎ জেব-উন্নিসা বেগমের কাছে । মব ! কি খবর বেচিবি ? দরিয়া । যে আজ তুমি বাজারে জ্যোতিষীর কাছে আপনার কেসমৎ জানিতে গিয়াছিলে, তাতে জ্যোতিষী তোমাকে শাহজাদী বিবাহ করিতে বলিয়াছে । তাহা হইলে তোমার তরঙ্কা হইবে । মব । দরিয়া বিবি ! আমি তোমার কি অপরাধ করিয়াছি যে, তুমি আমার উপর এই দৌরাত্ম্য করিতে প্রস্তুত ? দরিয়া । কি করিয়াছ ? তুমি করিয়াছ ? তুমি যাহা করিয়াছ, স্ত্রীলোকের অনিষ্ট কি আছে ? মবা । কেন পিয়ারি ! আমার মত কত আছে । দরিয়া । এমন পাপিষ্ঠ আর নাই। - মব । তামি পাপিষ্ঠ নই ৷ কিন্তু এখানে দাড়াইয় এত কথা চলিতে পারে না। স্থানান্তরে তুমি আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করিও । আমি সব বুঝাইয়৷ দিব } 'ို. এই বলিয়। মবারক আবার জেব-উন্নিসার কাছে ফিরিয়া গেল। জেবউন্নিসাকে বলিল, “আমি পুনৰ্ব্বার আসিয়াছি, এ বে-আদবী মাফ করিতে হইতেছে : বলিতে আসিয়াছি যে, দরিয়া বিবি হাজির আছে—. আছি । আমার কি না তার অপেক্ষা 1.