পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (প্রথম ভাগ).djvu/২৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՖԵ দেখিতেছি । তা যাই হউক, এখন যে বড় দেখা দিলে ? রাজ। আপনার ঠাকুর আমাকে ডাকাইয়াছেন । আমি । আমার ঠাকুর ? তিনি তোমার সন্ধান পাইলেন কি প্রকারে ? - রাজ। খুজিয়া খুঁজিয়া । আমি। এত খোজাখুঁজি কেন ? তোমায় বিষয় ছাড়িয়া দিতে অনুরোধ করিবার জন্য নয় ত ? রাজ । না না-তা কেন—তা কেন ? অার একটা কথার জন্য। এখন রজনীর কিছু বিষয় হইয়াছে শুনিয়া অনেক সম্বন্ধ আসিতেছে । তা কোথায় সম্বন্ধ করি—তাই আপনাদের জিজ্ঞাসা করিতে আসিয়াছি । আমি। কেন, অমরনাথ বাবুর সঙ্গে ত সম্বন্ধ হুইতেছিল ? তিনি এত করির রজনীর বিষয় উদ্ধার করিলেন, তাহাকে ছাড়া কাহাকে বিবাহ দিৰে ? রাজ । যদি তার অপেক্ষাও ভাল পাত্র পাই ? আমি । অমরনাথের অপেক্ষা ভাল পাত্র কোথায় পাইবে ? রাজ । মনে করুন, আপনি যেমন, এমনই পাত্র যদি পাই ? আমি একটু চমকিলাম। বললাম, “তাই হইলে অমরনাথের অপেক্ষা ভাল পাত্র হইল না । কিন্তু ছেদো কথা ছাড়িয়া দাও—তুমি কি আমার সঙ্গে রজনীর সম্বন্ধ করিতে আসিয়াছ ?” রাজচন্দ্র একটু কুষ্ঠিত হইল। ৰলিল, “ছ, তাই ৰটে। এ সম্বন্ধ করিতেই কর্তা আমাকে ডাকাইয়া" ছিলেন ।” গুনিয়া আকাশ হইতে পড়িলাম। সম্মুখে দারিদ্র্যরাক্ষসকে দেখিয়া ভীত হইয়া পিতা যে এই সম্বন্ধ করিতেছেন, তাহ বুঝিতে পারিলাম—রজনীকে আমি বিবাহ করিলে ঘরের বিষয় ঘরে থাকিবে । আমাকে অন্ধ পুষ্পনারীর কাছে বিক্রয় করিয়া, পিতা বিক্রয়মূল্যস্বরূপ হৃতসম্পত্তি পুনঃপ্রাপ্ত হইবেন । শুনিয়া হাড় জলিয়া গেল । - রাজচন্দ্রকে বলিলাম, “তুমি এখন যাও। কৰ্ত্তার সঙ্গে আমার সে কথা হইবে।” আমার রাগ দেখিয়া রাজচন্দ্র পিতার কাছে গেল, সে কি বলিল, বলিতে পারি না । পিতা তাছাকে বিদায় দিয়া আমাকে ডাকাইলেন । তিনি আমাকে নানাপ্রকারে অনুরোধ করিলেন, রজনীকে বিবাহ করিতেই হুইবে ; নহিলে সপরিবারে বঙ্কিমচন্দ্রের গ্রন্থাবলী মারা যাইব, খাইৰ কি ? তাছার, দুঃখ ও কাভজ্ঞতা cनभिग्नां पञांभांब्र झुःथं ट्झेण नां । वज्र ब्रांशं झईल । অামি রাগ করিয়া চলিয়! গেলাম । পিতার কাছ হইতে গিয়া অামার মা’র হাতে পড়িলাম। পিতার কাছে রাগ করিলাম, কিন্তু মা’র কাছে রাগ করিতে পারিলাম না—তাহার চক্ষের জল অসহ্য হইল। সেখান হইতে পলাইলাম । কিন্তু আমার প্রতিজ্ঞা স্থির রহিল—ষে রজনীকে দয়া করিয়া গোপালের সঙ্গে বিবাহিত করিৰার উযোগ করিয়াছিলাম, আজ তাঁহার টাকার লোভে তাছাকে স্বয়ং বিৰাহ করিব ? ৰিপদে পড়িয়া মনে করিলাম, ছোটমা’র সাহায্য অইব । গৃহের মধ্যে ছোটমাই বুদ্ধিমতী । ছোটমা’র কাছে গেলাম—“ছোট-মা, আমাকে কি রজনীকে বিবাহ করিতে হুইবে ? আমি কি অপরাধ করিয়াছি ?” ছোট-মা চুপ করিঃ রছিলেন । আমি । তুমিও কি ঐ পরামর্শে ? ছোট-মা । বাছা, রজনী ত সৎ কায়স্থের মেয়ে ? আমি । হুইলই বা । ছোট-মা । আমি জানি, সে সচ্চরিত্রা। আমি । তাহাও স্বীকার করি । ছোট-মা । সে পরম মুন্দরী । আমি পদ্মচক্ষু । ছোট-মা । ৰাব, যদি "পদ্মগজুই খোেজ, তবে তোমার আর একটা বিবাহ করিতে কতক্ষণ ? আমি । সে কি মা ! রজনীর টাকার জন্য রজনীকে বিবাহ করিয়া, তার বিষয় লইয়া, তার পর তাকে ঠেলিয়া ফেলিয়া দিয়া অার এক জনকে বিবাহ করা কেমন কাজটা হইবে ? ছোট মা । ঠেলিয়া ফেলিবে কেন ? তোমার বড়-মা কি ঠেলা আছেন ? এ কথার উত্তর ছোট-মা'র কাছে করিতে পারা ষায় না । তিনি আমার পিতার দ্বিতীয় পক্ষের বনিতা । বহুবিবাহের দোষের কথা তাহার সাক্ষাতে কি প্রকারে বলিব, সে কথা না বলিয়া বলিলাম, “আমি এ বিবাহ করিব না,—তুমি আমায় রক্ষা কর । তুমি সব পার ।” ছোট-মা। আমি না বুঝি, এমন নছে । কিন্তু बिबांह नां कब्रिटण •यांमब्रां नviब्रेियां८व्र अब्रांडां८द भांब्रां शाझेद । श्रांभि नकण कट्टै गइ कब्रिटङ गाब्रि, কিন্তু তোমাদিগের অল্পকষ্ট আমি চক্ষে দেখিতে