পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (প্রথম ভাগ).djvu/২৯২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রজনী মালীবে বলিল, “ৰ্তার মত নয়—তবে অমরনাথ, ৰাৰু হইতেই রজনী বিষয় পাইয়াছে, তার বাধ্য इ३.७३ हड्र ।” আমি । তবে অমরনাথ বাবুকে বল গিয়া, বিষয় রজনী এখনও পায় নাই । বিষয় আমাদের ; বিষয় আমরা ছাড়িব না । পার, তোমরা বিষয় মোকদম। করিয়া লও গিয়া । মালী-বোঁ । সে কথা আগে বলিলেই হইত । এত দিন মোকদম উপস্থিত হইত। আমি । মোকদম করা মুখের কথা নহে । টাকার শ্রাদ্ধ। রাজচন্দ্র দাস ফুল বেচিয়া কত টাকা করিয়াছে ? মালীবে রাগে গর্গর করিতে লাগিল । সত্য বলিতেছি, আমার কিছুই রাগ হয় নাই । মালী-বে। একটু রাগ সামলাইয়া বলিল, “অমর বাবু আমার बांभाई इईcण३ विषग्न षमब्र बांबूब श्रद । डिनि টাকা দিয়া মোকদমা করিতে পারেন, তাহার এমন শক্তি আছে ।” এই বলিয়া মালী-বেী উঠিয়া যায়, আমি তাহার আঁচল ধরিয়া বসাইলাম। মালীৰে হাসিয়া বসিল । আমি বলিলাম, “অমর বাবু মোকদ্দমা করিয়া বিষয় লইলে তোমার কি উপকার ?” মালী বেী । আমার মেয়ের সুখ হবে । আমি ; আর আমার ছেলের সঙ্গে তোমার মেয়ের বিয়ে হ'লে বুঝি বড় দুঃখ হবে ? মালী-বে। তা কেন ? তবে যেখানে থাকে, আমার মেয়ে সুখী হুইলেই হইল । আমি । তোমাদের নিজের কিছু সুখ চাই ন ? মালীবে। আমাদের আবার সুখ কি ? মেয়ের সুখেই আমাদের মুখ । আমি । খটকালীটা ? মালীবেী মুখ মুচকাইয়া হালি। বলিল, “আসল কথাটা বলিব মীঠাকুরাণি ? এখানে বিয়েন্ত্র মেয়ের মত নাই ।” আমি । সে কি ? কি বলে ? মালীবেী । এখানকার কথা হইলেই বলে, কাণার আবার বিয়েস্থ কাজ কি ? অামি । আর অমরনাথের সঙ্গে বিয়ের কথা হইলে ? মালীবেী । বলে, ওঁ হ’তে আমাদের সব । উনি शां बणि८बन, डांशदे कब्रिtङ रुश्द । আমি। তা বিয়ের কস্তার আবার মতামত কি ? মাৰাপের মতামত ইলেই হুইল । ○○ भाशौ८वी । ब्रछनौ ङ क्रूटम ८भरञ्च नञ्च, श्रांब्र विiभiब्र cश्रेंद्र जखोंन७ नश्च । एषांझ बेिश्वभ्रं डिबि, “ আমাদের নয় । সে আমাদের ছাকাইয়া দিলে । আমরা কি করিতে পারি? বরং তার মন রাখিয়াই : অামাদের এখন চলিতে হইতেছে । আমি ভাবিয়া চিন্তিয় জিজ্ঞাসা করিলাম,– '

  • রজনার সঙ্গে অমরনাথের দেখাশুনা হয় কি ?”

মালী-বেী । না । আমর বাবু দেখা করেন না । আমি। আমার সঙ্গে রজনীর একবার দেখা . হয় না কি ? মালী-বোঁ । আমারও ইচ্ছ। তাই । আপনি , যদি তাহাকে বুঝাইয় পড়াইয় তাহার মত করাষ্টতে পারেন । আপনাকে রজনী বিশেয ভক্তি-শ্রদ্ধা করে । , আমি । তা চেষ্টা করিয়া দেখিব ; কিন্তু রজনীর দেখা পাই কি প্রকারে ? কাল তাহাকে এ বাড়ীতে একবার পাঠাইয়া দিতে পার ? - মালীবোঁ । তার আটক কি ? সে ত এই বাড়ীতেই খাইয়া মানুষ । কিন্তু যার বিয়ের সম্বন্ধ হইতেছে, তাছাকে কি শ্বশুরবাড়ীতে আমন আদিনে অক্ষণে বিয়ের আগে আসিতে আছে ? মৰ্ব মাগী! আবার কাচ ! কি করি, আমি অন্ত । উপায় না দেখিয়া বলিলাম, "আচ্ছা, রজনী না আসিতে পারে, আমি একবার তোমাদের বাড়ী যাইতে পারি কি ?” . মালী বেী । সে কি ! আমাদের কি এমন ভাগ্য হুইবে যে, আপনার পায়ের ধূলা আমাদের বাড়ীতে পড়িবে ? আমি । কুটুম্বিত হইলে আমার কেন, জনেকেরই পড়িবে । তুমি আমাকে আজ নিমন্ত্রণ করিয়া যাও । মালী-বেী । তা আমাদের বাড়ীতে আপনাকে পাঠাইতে কৰ্ত্তার মত হইবে কেন ? - আমি । পুরুষমানুষের আবার মতামত কি ? মেয়েমানুষের ষে মত, পুরুষমামুষেরও সেই মত । . মালী-বেী ষোড়হাত করিয়া নিমন্ত্রণ করিয়া হাসিতে হাসিতে বিদায় গ্রহণ করিল। দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ অমরনাথের কথা : রজনীর সম্পত্তি উদ্ধারের জন্ত আমার এত কষ্ট’ সফল হইয়াছে, মিত্রেরাও নিৰ্ব্বিবাদে বিষয় ছাড়িয়া দিয়াছে, তথাপি বিষয় দখল লওয়া হয় নাই, ইহা §