পাতা:বত্রিশ সিংহাসন - নীলমণি বসাক.pdf/১৮৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১৮০

বত্রিশ সিংহাসন

রাজা ভাটকে এতাবৎ সামগ্রী দিয়া, সে তাহা ব্যয় করে কি না তাহা দেখিবার জন্য, তাহার পশ্চাৎ পশ্চাৎ দুই দূত প্রেরণ করিয়াছিলেন। দূতগণ দেখিল ব্রাহ্মণ বিবাহে সকল অর্থই ব্যয় করিল, তাহার পরে এক দিব- সের আহার সঙ্গতি রহিল না। বার্তাবহেরা রাজাকে আসিয়া এই বার্তা কহিলে, রাজা আর কয়েক লক্ষ মুদ্রা তাহার বাটীতে পাঠাইয়া দিলেন। এবং অত্যন্ত আহলাদিত হইয়া কহিলেন আমার রাজ্যে এমত সাহসিক লােক বাস করে ইহা বড় আহলাদের বিষয়।

 পুত্তলিকা কহিল, হে ভােজরাজ, দেখ রাজা বিক্র- মাদিত্য ভাটকে এত অর্থ দিয়াছিলেন, ভাট তাহা সমস্ত ব্যয় করিলেও রাজা তাহাকে আরো ধনদান করিলেন। যদি তুমি এবম্ভত দান করিতে সমর্থ হও তবে সিংহাসনে উপবেশন কর। নতুবা বৃথা ইচ্ছার অধীন হইও না, তাহাতে কোন লাভ নাই। এই কথা শুনিয়া ভােজরাজ সে দিবস সিংহাসনারােহণ করিলেন না। পরদিবস প্রত্যুষে স্নান পূজা করিয়া তদাররাহণ মানসে সভাতে আসিলে,

বিদ্যাবতী ষড়্বিংশ পুত্তলিকা

কহিল মহারাজ আমি তোমাকে এক জ্ঞানের কথা বলি শ্রবণ কর। মনুষ্য জন্মকালে কিছুই সঙ্গে আনে না, এবং মৃত্যুকালে কোন দ্রব্য তাহার সঙ্গে যায় না। নরদেহ গ্রহণ করিয়া এই সংসারে সৎকর্ম্ম করিলে