পাতা:বত্রিশ সিংহাসন - নীলমণি বসাক.pdf/৫২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

৪৬

বত্রিশ সিংহাসন

কর। পুত্তলীর এই বাক্যে রাজা ক্রোধাভিষিক্ত হইলেন, এবং শুভ লগ্নও অতীত হইল। সুতরাং সিংহাসনোপবেশন হইলনা। পর দিবস রাজা পুনৰ্বার আসিয়া সিংহাসনারােহণার্থে পাদ প্রসারণ করিলে

লীলাবতী পঞ্চম পুত্তলিকা

কহিল মহারাজ, বিক্রমাদিত্যের কিঞ্চিৎ গুণ কীর্ত্তন করি শ্রবণ কর।

 এক দিবস দুই ব্যক্তিতে বাদানুবাদ করিয়া এক ব্যক্তি কহিল অদৃষ্ট প্রধান পদার্থ, অন্য ব্যক্তি কহিল বল প্রধান। অদৃষ্টবাদী কহিল অদৃষ্টানুসারে অতি সামান্য ব্যক্তিও মান্য ও ধন ধান্য সম্পন্ন হয়, অতএব অদৃষ্টই শ্রেষ্ঠ। বল-মতাবলম্বী কহিল মনুষ্য বলবান, হইলে সমস্ত পৃথিবী তাহার বশীভূত হয় অতএব বলই শ্রেষ্ঠ।

 এই প্রকার বিবাদ উপস্থিত হইলে, উভয়ে দেবরাজের নিকটে গিয়া করপুটে দণ্ডায়মান হইয়া কহিল, স্বামিন, আমাদিগের এই এই প্রকার বিবাদ উপস্থিত, আপনি আমাদের বিবাদ ভঞ্জন করুন।

 ইন্দ্র বলিলেন আমার দ্বারা বিবাদের মীমাংসা হইবেক না, যে ব্যক্তি যােগ-সিদ্ধ হইয়াছেন তাহার দ্বারা ইহার মীমাংসা হইবেক। অতএব তােমরা মর্ত্য লােকে রাজা বিক্রমাদিত্যের নিকটে যাও, তিনি ইহার নিষ্কর্ষ করিয়া দিবেন।