প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বাংলাদেশ কোড ভলিউম ২৮.djvu/২৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৬৬ ব্যাংক-কোম্পানী আইন, ১৯৯১ (১২) উপ-ধারা (১০), (১৩) ও (১৫) এর বিধানাবলী সাপেক্ষে, উপধারা (১০) ও উপ-ধারা (১১) এর অধীন উপস্থাপিত দাবীর উপর বাংলাদেশ ব্যাংক তৎকর্তৃক সমীচীন বলিয়া বিবেচিত আদেশ প্রদান করিতে পরিবে, এবং উপ-ধারা (১১) এর অধীন উত্থাপিত কোন দাবীর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংক কোন অর্থ প্রদান বা মূল্যবান সামগ্ৰী বিলি করিলে উহার গ্রহীতার প্রাপ্তি রশিদ ঐ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্ব মোচন করিবে। ് (১৩) বাংলাদেশ ব্যাংকে উপ-ধারা (২) এর অধীন প্রদত্ত অর্থ বা इछाडबिङ মূল্যবান সামগ্ৰী সম্পর্কে অনুরূপ প্রদান বা হস্তান্তরের পর হইতে এক বছরের মধ্যে যদি কোন বিরোধ কোন আদালতে নিম্পত্তির অপেক্ষায় থাকে এবং উক্ত বিরোধ সম্পর্কে আদালত হইতে বা অন্য কোন সূত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক অবহিত হয়, তাহা হইলে বাংলাদেশ ব্যাংক উক্ত অর্থ বা সামগ্ৰী নিজের তত্বাবধানে রখিবে এবং আদালতের সিদ্ধান্ত মােতাকে উহারবিলিবন্দৱস্ত করবে। (১৪) উপ-ধার (১০), (১৩) এবং (১৫) এর বিধান সাপেক্ষে, উপ-ধারা (S) এর অধীন প্রদত্ত অর্থ বা হস্তান্তরিত মূল্যবান সামগ্ৰী বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক গৃহীত হওয়ার পর হইতে এক বৎসরের মধ্যে উক্ত অর্থ বা সামগ্ৰী সম্পর্কে যদি কোন দাবী উত্থাপতি না হয় বা কোন তরফ হইতে বাংলাদেশ ব্যাংক-কে অবহিত করা না হয়, তাহা হইলে উক্ত এক বৎসর অতিবাহিত হইবার পর হইতে উক্ত অর্থ বা সামগ্রীর উপর কাহারো কোন দাবী থাকিবে না এবং উহা সরকারের সম্পত্তি হইবে এবং সরকারের উপর উহা ন্যস্ত হইবে। (১৫) কোন ব্যাংক-কোম্পানী কর্তৃক চেক, ড্রাফট বা বিনিময় বিলের কোন পাওনাদার বা সুবিধা প্রাপককে বা যে ব্যক্তির নামে কোন মূল্যবান সামগ্রী রহিয়াছে সেই ব্যক্তিকে নোটিশ প্রদানের সম্পর্কে উপ-ধারা (১)এ বা বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক অদাবীকৃত অর্থ বা মূল্যবান সামগ্রী প্রকাশ সম্পর্কে উপ-ধারা (৯)এ যাহা কিছুই থাকুক না কেন, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি আপাততঃ বাংলাদেশে বসবাস না করার ক্ষেত্রে কোন ঋণ, দলিল বা মুল্যবান সামগীর বিলি বন্দোবস্তের (১৬) উপ-ধারা (২) এর অধীন বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক গৃহীত কোন অর্থ বা মূল্যবান সামগ্রীর ব্যাপারে কোন ব্যাংক-কোম্পানীর পূর্বস্বত্ব, পাল্টা দাবী বা পৃথক করিয়া রাখার দাবী অনুমোদন, পূরণ বা অন্য কিছু, বা ক্ষেত্রমত, কোন ব্যক্তির অধিকার সম্পর্কিত বিষয়ে উপ-ধারা (১২) মোতাবেক বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হইবে, এবং উক্ত সিদ্ধান্ত সম্পর্কে, উপ-ধারা (১৭) তে বিধৃত পদ্ধতি ব্যতীত অন্য কোনভাবে কোন আদালত, ট্রাইবুনাল বা অন্য কোন কর্তৃপক্ষের সম্মুখে কোন প্রশ্ন উত্থাপন করা চলিবে না। NQ