পাতা:বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুন ৩, ২০১২.pdf/৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৮৪৪০৭
বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুন ৩, ২০১২


 ৯৩ । অবৈধ খনিজ আহরণে বাধা প্ৰদান — (১) নিয়মবৰ্ণিত কারণে উপ-বিধি (২) তে উল্লিখিত পদক্ষেপ গ্ৰহণ করা যাইবে, যথাঃ—

 (ক) অননুমোদিত খনিজ আহরণ;

 (খ) অনুমোদন ছাড়া কোয়ারীর ব্যবহার; এবং

 (গ) অবৈধ কাৰ্যক্ৰমের মাধ্যমে আহরিত খনিজ অপসারণ করা।

 (২) উপ-বিধি (১) এ বৰ্ণিত যে কোন কাজ সম্পৰ্কে তথ্য পাওয়ার পর পরিচালক বা তদকতৃক মনোনীত বা কারিগরী যোগ্যতাসম্পন্ন কৰ্মকতা বা কৰ্মকতাগণ—

(ক) বিলম্ব না করিয়া সংশ্লিষ্ট এলাকা পরিদৰ্শন করিবেন এবং খনি বা কোয়ারীতে অবৈধ উত্তোলন বন্ধের জন্য স্থানীয় পুলিশ ও প্ৰশাসনের সহায়তায় ব্যবস্থা গ্ৰহণ করিবেন;

(খ) বেআইনী ভাবে আহরিত বা উত্তোলিত খনিজ পদাৰ্থ আটক করিবেন এবং এইগুলি নিলামে বিক্ৰয় করবেন এবং বিক্ৰয়কৃত অৰ্থ খনিজ সম্পদ উন্নয়ন বুরোর হিসাব খাতে জমা প্ৰদান করিবেন;

(গ) উত্তরপ কাৰ্যক্ৰমের সহিত সম্পূক্ত ব্যক্তি বা ব্যক্তিবৰ্গকে চিহিত করিয়া প্ৰয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্ৰহণের জন্য স্থানীয় প্ৰশাসনকে অবহিত করবেন; এবং

(ঘ) উত্তরপ কাজে লিপ্ত ব্যক্তি বা ব্যক্তিবৰ্গের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্ৰহণ করিবেন।

 ৯৪ । সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আইনের প্রযোজ্যতা —(১) এই বিধিমালায় বৰ্ণিত আইন ও প্ৰযোজ্য অন্যান্য আইনের অনুবিধি ছাড়াও অতিরিক্তভাবে এই বিধিমালার অধীন মঞ্জরকৃত লাইসেন্স বা ইজারার ক্ষেত্ৰে নিম্নবণিত আইনের ধারা প্ৰয়োগ করা যাইবে —

 (ক) The Mining Settlements Act, 1912 (Act II of 1912);

 (খ) The Mines Act, 1923 (Act IV of 1923), এবং

 (গ) বাংলাদেশ শ্ৰম আইন, ২০০৬ (২০০৬ সনের ৪২ নং আইন) ।

 ৯৫ । কোয়ারী ইজারা বহিৰ্ভত সময়কালে রয়্যালটি আদায় (সিলিকা বালু, সাধারণ পাথর, বালু মিশ্ৰিত পাথর। —বিধি ৭৮ এ নিৰ্দেশিত সময়ের মধ্যে সিলিকা বালু, সাধারণ পাথর এবং বালু মিশ্ৰিত পাথর ইত্যাদির কোয়ারী ইজারা প্ৰদান না করা হইলে সংশ্লিষ্ট জেলার জেলা প্ৰশাসক বুরোর পক্ষে উক্ত কোয়ারী এলাকায় খাস ভূমি হিসাবে অৰ্থ আদায় করিবেন এবং বুরোর নিৰ্দিষ্ট কোডে উহা জমা করিবেন।