পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/১১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভূমিক এই গ্রন্থে বাংল| শব্দতত্ত্ব সম্বন্ধে আলোচন করা হয়েছে। বলা বাহুল্য যথার্থ বাংলা ভাষা প্রাকৃত ভাষা, সংস্কৃত ভাষা নয়। প্রাচীন প্রাকৃতের মতোই বাংলা প্রাকৃতের বৈচিত্র্য আছে। চাটগা থেকে আরম্ভ ক’রে বীরভূম পৰ্য্যন্ত এই প্রাকৃতের বিভিন্নতা স্বপ্রসিদ্ধ। কিন্তু কোন প্রাকৃতের রূপ বাংলা-সাহিত্যে সাধারণত স্বীকৃত হবে সেই প্রশ্ন ১৩২৩ শালে প্রকাশিত প্রবন্ধে “সবুজপত্রে” আলোচিত হয়। বস্তুত এই তর্ক স্বচনা হবার বহু পূৰ্ব্বেই সহজে তা স্বীকৃত হয়ে গেছে। বাংলা নাটকে পাত্রদের মুখে যে বাংলায় বাক্যালাপ বিনা বিতর্কে প্রচলিত হয়েছে তা পূৰ্ব্ব উত্তর অথবা পশ্চিম প্রাস্তের বাংলা নয়। এই গ্রন্থের আরম্ভে প্রয়োজন অন্তভব ক’রে উক্ত প্রবন্ধ প্রকাশ কর হোলো । ভানান কথা পদ্মায় যখন পুল হয় নাই তখন এপারে ছিল চওড়া রেলপথ, ওপারে ছিল সরু । মাঝখানে একটা বিচ্ছেদ ছিল বলিয়া রেলপথের এই দ্বিধা আমাদের সহিয়াছিল। এখন সেই বিচ্ছেদ মিটিয়া গেছে তবু ব্যবস্থার কাপণ্যে যখন অৰ্দ্ধেক রাত্রে জিনিসপত্র লইয়া গাড়ি বদল করিতে হয় তখন রেলের বিধাতাকে দোষ না দিয়া থাকিতে পারি না । ও তো গেল মানুষ এবং মাল চলাচলের পথ,কিন্তু ভাব চলাচলের