পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/১৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাংলা বহুবচন S8 (t “সব”, “সকল” ও “সমুদয়’ শব্দ বিশেষ্যশব্দের পূৰ্ব্বে বিশেষণরূপে প্রযুক্ত হইয়া বহুত্ব অর্থ প্রকাশ করে। কিন্তু বস্তুত এই বিশেষণগুলি সমষ্টিবাচক । “সব লোক” এবং “লোকগুলি’র মধ্যে অর্থভেদ আছে । “সব লোক” ইংরেজিতে all men এবং Cziffsf the men ! লিখিত বাংলায়, “সকল” ও “সমুদয়” শব্দ বিশেষ্যপদের পরে বসে । কিন্তু কথিত বাংলায় কখনই তাহা হয় না । সকল গোরু বলি, গোরু সকল বলি না। বাংলাভাষার প্রকৃতিবিরুদ্ধ এইরূপ প্রয়োগ সম্ভবত আধুনিককালে গদ্যরচনা স্বষ্টির সময়ে প্রবর্তিত হইয়াছে । লিখিত ভাষায় “সকল” যখন কোনো শব্দের পরে বসে তখন তাহাতাহার মূল অর্থ ত্যাগ করিয়াশব্দটিকে বহুবচনের ভাব দান করে । লোকগুলি এবং লোকসকল একই অর্থে ব্যবহৃত হইতে পারে । প্রাচীন লিখিত ভাষায় “সব” শব্দ বিশেষ্যপদের পরে যুক্ত হইত। এখন সে রীতি উঠিয়া গেছে, এখন কেবল পূর্বেই তাহার ব্যবহার আছে । কেবল বৰ্ত্তমান কাব্যসাহিত্যে এখনো ইহার প্রয়োগ দেখা যায়—যথা “পার্থী সব করে রব।” বর্তমানে, বিশেষ্যপদের পরে “সব” শব্দ বসাইতে হইলে লিশেষ্য বহুবচনরাপ গ্রহণ করে । যথা পার্থীরা সব, ছেলেরা সব অথবা ছেলেরা সবাই । বলা বাহুল্য জীববাচক শব্দ ব্যতীত অন্যত্র বহুবচনে এই *রা” ও “এরা” চিহ্ন বসে না । বানরগুলা সব, ঘোড়াগুলা সব, টেবিলগুলা সব, দোয়াতগুলা সব—এইরূপ, গুলাযোগে সচেতন ) o