পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/১৮৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S6 o শব্দতত্ত্ব বিড়ালী, উল্পী, মহিষী হইয়া থাকে কিন্তু কথিত ভাষায় এরূপ ব্যবহার হাস্যকর । সাধারণত ই এবং ঈ প্রত্যয় ও নি এবং নী প্রত্যয় যোগে বাংলায় স্ত্রীলিঙ্গপদ নিম্পন্ন হয় । ই ও ঈ প্রত্যয় –ছোড়া, ছুড়ি, ছোকরা, ছুকরি, খুড়া, খুড়ি, কাকা কাকি, মামা মামি, পাগলা পাগলি,জেঠা জেঠি জেঠাই, বেটা বোট, দাদা দিদি, মেসে মাসি, পিসে পিসি, পাঠা পাঠি, ভেড়া ভেড়ি, ঘোড় ঘুড়ি, বুড়া বুড়ি, বামন বামনি, খোকা খুকি, খাল খালি, অভাগা অভাগী, হতভাগ হতভাগী, বোষ্টম বোষ্টমী, নেড়া, নেড়ি । নি ওনী প্রত্যয় :–কলু কলুনি,তেলি তেলিনি, গয়লা গয়লানি, বাঘ বাঘিনি, মালি মালিনী, ধোবা ধোবানি, নাপিত নাপৃতনি, কামার কামারনি, চামার চামারনি, পুরুং পুরুৎনি, মেতর মেতরানি, র্তাতি র্তাতিনি, মজুর মজুরনি, ঠাকুর ঠাকুরানি (ঠাকুরুন ), চাকর চাকরানি, হাড়ি হাড়িনি, সাপ সাপিনি, পাগল পাগলিনি, উড়ে উড়েনি, কায়েৎ কায়েৎনি, খোটা খোটানি, চৌধুরী চৌধুরাণী, মোগল মোগলানি, মুসলমান মুসলমাননি, জেলে জেলেনি, রাজপুং রাজপুৎনি, বেয়াই বেয়ান । এই প্রত্যয় যোগের নিয়ম কী তাহা বলিবার কোনো প্রয়োজন নাই কারণ এ প্রত্যয়টি কেবলমাত্র কয়েকটি শব্দেই আবদ্ধ, তাহার বাহিরে প্রয়োজন হইলেও ব্যবহার হয় না। পাঞ্জাবি সম্বন্ধে পাঞ্জাবিনি, মারাঠা সম্বন্ধে মারাঠনি, গুজরাটি সম্বন্ধে গুজরাটুনি প্রয়োগ নাই। উড়েনি আছে কিন্তু শিখনি মগনি মাদ্রাজিনী নাই।