পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/২১৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Sbrरे শব্দতত্ত্ব ঠাঙানো, কিলোনো, ঘুষোনে, গু তোনে, চড়ানো, লাথানে, জুতোনো । এগুলো মারাত্মক শব্দ সন্দেহ নেই, এর থেকে দেখা যাচ্চে যথেষ্ট উত্তেজিত হোলে বাংলায় “আনো” প্রত্যয় সময়ে সময়ে এই পথে আপন কৰ্ত্তব্য স্মরণ করে । অপেক্ষাকৃত নিরীহ শব্দও আছে, যেমন আগল থেকে আগলানো ; ফল থেকে ফলানো, হাত থেকে হাতানে, চমক থেকে চমকানো । বিশেষণ শব্দ থেকে, যেমন উলটা থেকে উলটানে, খোড়া থেকে খোড়ানো, বাকা থেকে বাকানো, রাঙা থেকে রাঙানে । ■ বিদ্যাপতির পদে আছে, ”সখি, কি পুছসি অনুভব মোয় ।” যদি তার বদলে—“কি জিজ্ঞাসা করই অনুভব মোয়” ব্যবহারটাই “বাধ্যতামূলক” হোত কবি তাহোলে ওর উল্লেখই বন্ধ করে দিতেন । । অথচ প্রশ্ন করা অর্থে স্বধানো শব্দটা শুধু যে কবিতায় দেখি তা নয় অনেক জায়গায় গ্রামের লোকের মুখেও ঐ কথার চল আছে । বাংলা ভাষার ইতিহাসে র্যারা প্রবীণ র্তাদের আমি স্বধাই, জিজ্ঞাসা করা শব্দটি বাংলা প্রাচীন সাহিত্যে বা লোকসাহিত্যে র্তারা কোথাও পেয়েছেন কি না । +“বাধ্যতামূলক” নামে যে একটা বৰ্ব্বর শৰ বাংলাভাষাকে অধিকার করতে উদ্যত, তার সম্বন্ধে কি সাবধান হওয়া উচিত হয় না ? কম্পাসরি এডুকেশনে বাধ্যতা বলে বালাই যদি কোথাও থাকে সে তার মূলে নয় সে তার পিঠের দিকে বা কাধের উপর, অর্থাৎ ঐ এডুকেশনটা বাধ্যতাগ্রস্ত বা বাধ্যভাচালিত। যদি বলতে হয় “পরীক্ষায় সংস্কৃত ভাষা কম্পন্সরি নয়" তাহোলে কি বলা চলবে **बौक्रांब्र नश्कूठ छांव बांशठामूलक नब्र ?" cयोछांशाखरम “बांबछिक" भलग्ने। উক্ত অর্থে কোথাও কোথাও চলতে আরম্ভ করেছে।