পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/২২৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SS రి শব্দতত্ত্ব হচ্চে শিক্ষার মূলে—তার প্রণালীতেই কম্পালশন’। অথচ ‘অবশু-শিক্ষা’ শব্দটা বলবামাত্র বোঝা যায় জিনিষটা কী । ‘দেশে অবশু-শিক্ষা প্রবর্তন করা উচিত—কানেও শোনায় ভালো, মনেও প্রবেশ করে সহজে । ‘কম্পালসারি এডুকেশন’এর বাংলা যদি হয় বাধ্যতামূলক শিক্ষা’, ‘কম্পালসারি সাবজেক্ট’ কি হবে বাধ্যতামূলক পাঠ্য বিষয় ? তার চেয়ে অবশু-পাঠ্য বিষয়', কি সঙ্গত ও সহজ শোনায় না? ঐচ্ছিক’ (optional) শব্দটা সংস্কৃতে পেয়েছি, তারি বিপরীতে ‘আবশুিক’ শব্দ ব্যবহার চলে কি না, পণ্ডিতদের জিজ্ঞাসা করি । ইংরেজিতে যে সব শব্দ অত্যস্ত সহজ ও নিত্য প্রচলিত, দরকারের সময় বাংলায় তার প্রতিশব্দ সহসা খুজে পাওয়া যায় না, তখন তাড়াতাড়ি যা হয় একটা বানিয়ে দিতে হয়। সেটা অনেক সময় বেখাপ হয়ে দাড়ায়, অনেক সময় মূল ভাবট। ব্যবহার করাই স্থগিত থাকে। অথচ সংস্কৃত ভাষায় হয়তো তার অবিকল বা অনুরূপ ভাবের শব্দ দুর্লভ নয়। একদিন রিপোর্ট' কথাটার বাংলা করবার প্রয়োজন হয়েছিল । সেটাকে বানাবার চেষ্টা করা গেল, কোনোটাই মনে লাগল না । হঠাৎ মনে পড়ল কাদম্বরীতে আছে "প্রতিবেদন’—আর ভাবনা রইল না । ‘প্রতিবেদন, প্রতিবেদিত, প্রতিবেদক’—যেমন ক’রেই ব্যবহার করে, কানে ব! মনে কোথাও বাধে না । জনসংখ্যার অতিবৃদ্ধি— ওভারপপুলেশন—বিষয়টা আজকাল খবরের কাগজের একট। নিত্য আলোচ্য ; কোমর বেঁধে ওর একটা বাংলা শব্দ বানাতে