পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


VL O শবদতত্ত্ব মধ্যে যে পার্থক্য আছে, তাহ অন্য উপায়ে প্রকাশ করিতে গেলে হতাশ হইতে হয় । এক কাটা সম্বন্ধে কত বিচিত্র বর্ণনা আছে । কচ করিয়া, কচাং করিয়া, কচকচ করিয়া কাটা, কচাকচ কাটিয়া যাওয়া, কুচ করিয়া, কট করিয়া, কটাৎ করিয়া, কটাস করিয়া, ক্যাচ করিয়া, ঘ্যাচ ঘ্যাচ করিয়া, ঝড়াং করিয়া,– এই সকল ভিন্ন ভিন্ন প্রয়োগ কাট। সম্বন্ধে যত প্রকার বিচিত্র ভাবের উদ্রেক করে, তাহার সুহ্ম প্রভেদ ভাষান্তরে বিদেশীর নিকট ব্যক্ত করা অসম্ভব । ইংরাজিতে গমন ক্রিয়ার ভিন্ন ভিন্ন ছবির জন্য বিচিত্র শব্দ wice creep, crawl, sweep, totter, waddle off বাংলায় আভিধানিক শব্দে চলার বিচিত্র ছবি পাওয়া যায় না— ছবি খুজিতে হইলে আমাদের অভিধান-তিরস্কৃত শব্দগুলি ঘাটিয়া দেখিতে হয় । খটখট করিয়া, ঘটঘট করিয়া, খুটখুট করিয়া, খুরখুর করিয়া, খুটুসখুটুস করিয়া, গুটগুট করিয়া, ঘটর ঘটর করিয়া, ট্যাঙস ট্যাঙস করিয়া, থপথপ করিয়া, থপাস থপাস করিয়া, ধদ্ধড় করিয়া, ধী ধর্ণ করিয়া, সন সন করিয়া, সুড় মুড় করিয়া, স্কট স্বট করিয়া, মুডুং করিয়া, হন হন করিয়া, হুড়মুড় করিয়া, চলার এত বিচিত্র অথচ সুস্পষ্ট ছবি কোথায় পাওয়া যাইবে ? চলা, কাটা প্রভৃতি ক্রিয়ার সহিত ধ্বনির সম্বন্ধ থাকা আশ্চৰ্য্য নহে—কারণ গতি হইতে শবদ উৎপন্ন হইয়া থাকে। কিন্তু যে সকল ছবি ধ্বনির সহিত দূরসম্পর্কবিশিষ্ট, তাহাও বাংলা ভাষায় ধবন্যাত্মক শবো ব্যক্ত হয় । যেমন পাতলা জিনিষকে ‘ফিন ফিন’,