পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৭০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


WoO শব্দতত্ত্ব অর্থাত্মক শব্দে সেই পরিমাপ কাৰ্য্যের সাহায্য করে । কিন্তু গতিবোধ এবং বেদনাবোধ স্থিতিবোধ অপেক্ষা অধিকতর অনিৰ্ব্বচনীয়। তাহাবুঝিতে হইলে বর্ণনা ছাড়িয়া সঙ্কেতের সাহায্য লইতে হয়। ধ্বস্তাত্মক শব্দগুলি সঙ্কেত । গদ্য ও পদ্যের প্রভেদও এই কারণমূলক । গদ্য জ্ঞান লইয়৷ এবং পস্ত অমৃভাব লইয়া। বিশুদ্ধ জ্ঞান অর্থের সাহায্যে পরিস্ফুট হয় ; কিন্তু অমুভাব কেবলমাত্র অর্থের দ্বারা ব্যক্ত হয় না, তাহার জন্য ছন্দের ধ্বনি চাই ; সেই ধ্বনি অনিৰ্ব্বচনীয়কে সঙ্কেতে প্রকাশ করে । * আমাদের বর্ণনায় যে অংশ অপেক্ষাকৃত অনিৰ্ব্বচনীয়তর, সেইগুলিকে ব্যক্ত করিবার জন্য , বাংলা ভাষায় এই সকল অভিধানের আশ্রয়চু্যত অব্যক্ত ধ্বনি কাজ করে । যাহা চঞ্চল, যাহার বিশেষত্ব অতি সুহ্ম, যাহার অনুভূতি সহজে মুস্পষ্ট হইবার নহে, তাহাদের জন্য এই ধ্বনিগুলি সন্ধেgন্তর কাজ করিতেছে। আমার তালিকা আকারাদি বর্ণানুক্রমে লিপিবদ্ধ করিয়াছি। সময়াভাববশতঃ সেই সহজ পথ লইয়াছি। উচিত ছিল চলন, কৰ্ত্তন, পতন প্রভৃতি ভিন্ন ভিন্ন পৰ্য্যায়ে শব্দগুলিকে শ্রেণীবদ্ধ করা। তাহা হইলে সহজে বুঝা যাইত কোন কোন শ্রেণীর বর্ণনায় এই শব্দগুলি ব্যবহার হয় এবং ভিন্ন ভিন্ন পৰ্য্যায়ের মধ্যে ধ্বনির ঐক্য আছে কিনা। ঐক্য থাকাই সম্ভব । ছেদনবোধক শব্দগুলি চকারাস্ত অথবা টকারাস্ত ;–কচ এবং কট—তীক্ষ অন্ত্রে ছেদন