পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাংলা কৃৎ ও তদ্ধিত słł জিনিষপত্র ঢেকি কুলা ইত্যাদি। গুণবাচক প্রভৃতি বিশেষ্য বিশেষণের প্রয়োজন হয় নাই । ও প্রত্যয় । এই প্রত্যয়যোগে একশ্রেণীর বিশেষণ শব্দের স্বষ্টি হয়। যথা, কটুমটু শব্দের উত্তর ও প্রত্যয় হইয়া কটোমটো (কটোমটো ভাষা, কটোমটো দৃষ্টি ) টলমল হইতে টলোমলে । * আসন্নপ্রবণতা বুঝাইবার জন্য শব্দদ্বৈত যোগে যে বিশেষণ হয় তাহাতে এই ও প্রত্যয়ের হাত আছে ; যথা পড়ধাতু হইতে পড়েপড়ে, পাকুধাতু হইতে পাকো-পাকো, মরুধাতু হইতে মরো-মরে, কাদধাতু হইতে কাদো-কাদো। অন্য অর্থে হয় না, যথা— কাটাকাটা ( কথা ), পাকাপাক, ছাড়াছাড়া ইত্যাদি । এই প্রসঙ্গে একটি বিষয়ে পাঠকদের মনোযোগ আকর্ষণ করিতে চাই। মনে পড়িতেছে, রামমোহন রায় তাহার বাংলা ব্যাকরণে লিখিয়াছেন, বাংলায় বিশেষণপদ হলন্ত হয় না। কথাটা সম্পূর্ণ প্রামাণিক নহে, কিন্তু মোটের উপর বলা যায়, খাস বাংলার অধিকাংশ দুই অক্ষরের বিশেষণ হলন্ত নহে। বাংলা উচ্চারণের সাধারণ নিয়মমতে ভালো শব্দ ভাল হওয়া উচিত ছিল,কিন্তু আমরা

  • দ্রষ্টব্য-এই যে, ধ্বস্তাত্মক শব্দদ্বৈতে সৰ্ব্বত্র এ নিয়ম খাটে না। যথা আমর। টক-টক লাল, বা খট-খট রৌদ্র, বা টন-টন ব্যথা বলি না ; সেন্থলে টক্‌টকে খট্রখটে টনটনে বলিয়া থাকি। কটমচ্‌ টল্টল, জ্বলজ্বল, শব্দ হইতে বিকল্পে, কটোমটো, কটমটে ; টলোমলো, টলমলে ; জ্বলোজ্বলো, জ্বলজ্বলে হুইয়৷

খাকে ।