পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8b" শবদ তত্ত্ব ‘উত্তর আ প্রত্যয় করিয়া ঝরা । ইহারা বিশেষ্য বিশেষণ উভয় ভাবেই ব্যবহৃত হয়। বিশেষণ যেমন বাধা হাত ; বিশেষ্য যেমন হাত বাধা । দ্রষ্টব্য এই যে, কেবল একমাত্রিক অর্থাৎ monosyllabic ধাতুর উত্তর এইরূপ আপ্রত্যয় হইয়া দুই অক্ষরের বিশেষ্য বিশেষণ স্বষ্টি করে । যেমন, ধৰ্ব মার চল বল হইতে ধরা মারা চলা বলা । বহুমাত্রিক ধাতু বা ক্রিয়াবাচক শব্দের উত্তর আ সংযোগ হয় না। যেমন আঁচড় হইতে আঁচড়া, আছাড় হইতে আছড়া হয় না। কিন্তু শুদ্ধমাত্র বিশেষণরূপে হইতে পারে। যেমন থ্যাৎলা মাংস, র্কোকৃড়া চুল। বাঘ-আঁচড়া গাছ, নেই-আকৃড়া লোক, ( ন্যায়"াকৃড়া অর্থাৎ নৈয়ায়িক ভার্কিক ) . ক্রিয়াবাচক বিশেষ বিশেষণের দৃষ্টান্ত উপরে দেওয়া গেল। অা প্রত্যয়যোগে নিম্পন্ন পদার্থবাচক ও গুণবাচক বিশেষ্যের দৃষ্টান্ত দুই একটি মনে পড়িতেছে —তাওয়া ( যাহাতে রুটিতে তা দেওয়া যায় ) ; দাওয়া ( দাবী, অর্থাৎ দাও বলিবার অধিকার ); श्राझ्फ़ ( अंछि श्हे८ङ थांन श्राकृफ़ाझेब्र लझेब्र बाश अवशिष्टे থাকে ) । বিশিষ্ট অর্থে আ প্রত্যয় হইয়া থাকে। যথা, তেলবিশিষ্ট তেলা, বেতালবিশিষ্ট বেতালা ; বেস্থরবিশিষ্ট বেস্বরা ; জলময় জল ; মুন বিশিষ্ট নোনা (লবণাক্ত ) ; আলোকিত আলী ; রোগযুক্ত রোগা ; মলযুক্ত ময়লা ; চালযুক্ত চালা ( ঘর ) মাটিযুক্ত মাটিয়া ( মেটে) বালিযুক্ত বালিয়া ( বেলে, দাড়ি যুক্ত দাড়িয়া ( দেড়ে )।