পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఆ8 শব্দতত্ত্ব শব্দের উত্তর আ প্রত্যয় করিলে হয় টুলো ; মধুশদের উত্তর আ প্রত্যয় করিলে হয় মোধে। ; লুন শব্দের উত্তর আ প্রত্যয় করিলে হয় লোনা ; জল শব্দের উত্তর অন+ই প্রত্যয় করিলে হয় জলুনি, কোদল শব্দের উত্তর ই+ আ প্রত্যয় করিলে হয় কুঁছলে । কতকগুলি প্রত্যয় অামি আকুমানিক ভাবে দিয়াছি। সেগুলিকে প্রত্যয় বলিয়া বিশ্বাস করি, কিন্তু শবদ হইতে তাহদিগকে বিচ্ছিন্ন করিয়া তাহাদের প্রত্যয়রূপ প্রমাণ করিতে পারি নাই যেমন, অং-প্রত্যয় । ভুজং ভড়ৎ প্রভৃতি শব্দের অং বাদ দিলে যাঙ্গ বাকি থাকে, তাহ বাংলায় চলিত নাই। ভড়, শব্দ নাই বটে, কিন্তু ভড় কা আছে, ভড়ং এবং ভড়কের অর্থসাদৃত আছে । তাই মনে হয়, ভড় বলিয়া একট। আদি-শব্দ ছিল, তাহার উত্তর অক্‌ করিয়া ভড়ক ও অং করিয়া ভড়ং হঠয়াছে । বড়াং শব্দে এই মত সমর্থন করিবে । আমার কালনা প্রদেশীয় বন্ধুগণ বলেন, তাহারা বড়াই শব্দের স্থলে বড়াং শব্দ সৰ্ব্বদাই ব্যবহার করেন, তাহাতে বুঝা যায়, বড়ো শব্দের উত্তর যেমন আ+ই প্রত্যয় করিয়া বড়াই হইয়াছে, তেমনি আং প্রত্যয় করিয়া বড়াং হইয়াছে—মূল শব্দটি বড়ে, প্রত্যয় দুইটি আই ও আং। প্রত্যয়গুলি কী ভাবে লিখিত হওয়া উচিত, তাহাও বিচারের দ্বারা ক্রমশ স্থির হইতে পারিবে । যাহাকে অস প্রত্যয় বলিয়াছি, তাহা অস অথবা অ—বর্জিত, সা প্রত্যয়টি স+আ, অথবা সা, এ সমস্ত নির্ণয় করিবার ভার ব্যাকরণবিৎ পণ্ডিতদের উপর নিক্ষেপ করিয়া আমি বিদায় গ্রহণ করিলাম । >\0ob