পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১৮৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিধুবাবু। ঝিঝিট-টিমেতেতাল।। আমার মনের দুঃখ, আমি কারে কহিব। ইহার উপায় কি, বিষ খাইব । কি মকরপুরে গিয়ে শীতল হইব। বেহাগ—জলদতে তাল । ওষ্ঠীগত প্রাণনাথ, না দেখে তোমারে। স্বস্থানে যাবে কি বাহির হইবে, বল না আমারে | অধীনে সদয়, হলে ক্ষতি হয়, বুঝেছ অস্তরে। ইহাতে কেমনে প্রবেধিবে মনে, থাকি কি প্রকারে । অনুকল বিধি, যদি প্রাণ নিধি, দিলে হে আমারে। করিতে যতন, সংশয় জীবন, বলিব কাহারে ॥ বেহাগ-একতালা । নিত্য নিত্য করি মনে, বলি খেদের কারণ, তারে আর সাধিব না। প্রভাত হইলে পুনঃ, কেমনে করয়ে প্রাণ, আর সে ভাব থাকে না | হইয়ে আপন মন, হইল তার অধীন, 尊 কি করি বল না। ইহাতে উপায় আর, থাকিলে দেখ আমার, না হতো এত ধাতন ॥ পরজ-জাড়াঠেৰ । ৮ শুন সই মোর মন মজিল এখন কি করি। পশ্চিমে অরুণোদয় হলে পাসরিতে নারি । কুল শীল অভিমান, ত্যজিয়ে হলেম অধীন, লোকের কথাতে, পারি কি ত্যজিতে, f ত্যজিলে তখনি মরি ॥

  • ब्रिछ-जांप्लांt#ढ़ । so আমি তাহার নয়ন-জলেতে।

কেপ শেষ ফালি তাহে, দিয়েছে গলেতে ॥ দি প্রাণপণ করি, চাহি পলাইতে। ইতে নাদের তীর, त्रॆषान् निःऽ ।। | సె\లి 顫 পরজ-জলদতেতালা । দেখিবে আপনমত আপন জনে। (প্রাণ) না বুধিলে তব মত, মতাধীন হবে কেনে। দৈবের ঘটনা যাহা, বল কে খণ্ডিবে তাহ, কমলে কণ্টক আছে, মধুকর তা কি মনে। পরজ-জলদতেতালা । কেন লে। প্রাণ নয়নে অরুণ উদয় । তপন সবারে দহে, না দহে কমলে, তব আঁখি রবি হৃদিকমলে জ্বলায় ॥ তব কেশ ঘন ঘন, শীতল করিত মন, এখন তা নয়ু । আজু ফণিময় হেরি, কাতর পরাণ, নিকট না হতে পারি, দংশে পাছে ভয়। পরজ-জলদতেতালা । কেমনে রে প্রাণ বুঝাব, যেমন আমার মন। জেনে যদি না জানিবে, কে জানিতে পারে, বিষম হইল মোরে, করি কি এখন। মোর মনে নিরস্তর, প্রাণ তুমি বাস কর, না জান কেমন । মন জলয়ে যখন, তুমি নাহি জ্বল, জ্বলিলে বুঝিতে তবে, আমি হই যেমন । পরজ-জলদতেতালা । কখন রে প্রাণ ভাবনা, আমি তোমার। হৃদয়-সরোজাসনে, করিয়ে যতন, তোমারে রেখেছি প্রাণ, দেখি নিরন্তর, দেখিতে দেখিতে দেখ, অনিমিখ হয় আঁধি, মুখহে অপার। পিরীতে মান মিশ্রিত, জানহ তাহাতে, সে মান উদয় হলে, উভয়ে কাতর। णणिउ-ज्रांप्लांtáक। দেখিতে দেখিতে কোথ,সুকাইল ওলো সখি। আঁধি পালটতে পুন, অরে আর নাহি দেৰি। ক্ষণে দরশনে আঁধি, কদাচিত হয় মুখী, তৃষা অতিশয় হয়, মনে বুঝে দেখ দেখি।