পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দেওয়ান মহাশয় । সোহিনী—অtড় । আর কত যন্ত্রণা শু্যামা দিবি গো আমারে। সহেন জঠরব্যাধি, জননী গো বারে বরে। নিজ দোষেতে দূষিত হয়ে আছি জ্ঞানহত, কৃতান্তভযুজনিত, এ দুস্তরে কে নিস্তারে। তবাঞ্জিকমলে, নাহি মতি গো বিমলে, এহি অকিঞ্চনে ডাকে মা ভবান্ধকূপেতে পড়ে | ললিতবিভাস —আ{ডঠেকা । বনরুচি এলোকেশী নাচিছে কে রণে । নাচিছে কে রণে বামা নাচিছে কে বণে । হুহুঙ্গার বেরিখয়, বিনাশিছে সৈন্তচয়, । এ বামা সামান্ত নয়, হয় অনুমানে । অব্যক্ত হইয়ে ব্যক্ত, হইবে মুরহিতসক্তা, এ রণে জীবনত্যক্ত, হবে দৈত্যগণে ॥ শামাঙ্গে রুধিরচিহ্ন, প্রত্যঙ্গে শোভিছে ভিন্ন, যেমন জবাদল ছিন্ন, যমুনাজীবনে । কিবা হাসির হিল্লোলে, মেঘ কেলে তারা খেলে ওরূপ হৃদিকমলে স্থাপে অকিঞ্চনে ॥ সিন্ধু-মধ্যমান। বল কি হবে মাদুরাশয় তনয়ের উপায়। রিপু ছয় আমারে ভুলায় ৷ আজন্ম কুবাসনায়, কাল গেল মত্ততা, ; নিকট যম-যন্ত্রণা-দায়। | শুনি এই বেদে কয়, দুর্গা নামে দুঃখ-ক্ষয়, ডাকি তারিণী তোমায়ু সেই ভরসায়। যদি নাম মহিমায়, অকিঞ্চন ত্ৰাণ পায়, । বিশেষ যশ প্রকাশে তারিলে আমায় ॥ বসন্ত-বাহার—আড়l | তারা তুমি কত রূপ জান ধরিতে। জননী গে৷ জ্বালামুখী গিরি-দুহিতে ॥ লোমকূপে ধরাধর, হৈমবতী পরাৎপর, আমুর বিনাশ কর মা অঁথির নিমিষে। তুমি রাধা তুমি কৃষ্ণ, মহামায়া মহাবিঞ্চে, তুমি গোম রামরূপিণী তুমি অধিতে। . ა\96# 135-1 | কর বাম রণে নাচিছে। সুধাপানে ঢলঢল ঢুলে পড়িছে। একে ত নীরদ কায়, ত্ৰিভঙ্গ ভঙ্গিম। তায়, কালিন্দীসলিলে যেন জলা ভাসিছে । সিন্ধু—এক তাল।। ত্ৰাহি এ পাপাঙ্গে, অমৃতময়ী গঙ্গে, ত্ৰিধার তরঙ্গে, ত্রিলোকপাবনী । অসীম মহিমা তব, জানি শিরে ধরেন ভব, গোবিন্দচরণোদ্ভব, মুক্তিপ্রদায়িনী ॥ | I ম্পর্শে তব নীরকণা, মুক্ত সাগরনন্দন, ভক্তিভাবে ভজে যে সে লভে নাকি জানি। দীন হীন অকিঞ্চনে, চরমে রেখ চরণে, ভোগবতী অলকানন্দ মন্দাকিনী ॥ মুকুটমল্লার—একতলা । কে রণরঙ্গিণী, যোগিনী সঙ্গিনী, হয়ে উলঙ্গিনী নাচিছে সমরে। পদতল নবপ্রভাকর কর, দশ সুধাকর শোভিছে নখরে ॥ কিব৷ জীমুতাঙ্গী, জ্যোতি তমোহর, চরণে পতিত শবরূপে হর, জবা বিল্বদল কিবা মনোহর, শোভিছে ওপদে সঁপিছে অমরে । কুন্তলজাল জিনি কাদম্বিনী, আরক্ত নলিনীদল ত্রিনয়নী, লোল রসনা করল বদনী, শোণিতের ধারা বহে বিম্ব ধরে ॥ দত্তে কম্পে ধরণী সঘনে, করে হুহুঙ্কার পাবক নিঃস্বনে, ঝরে ইরম্মদ নয়নের কোণে, ক্ষণপ্রভা খেলে দশন উপরে। ভয়ঙ্কর মূৰ্ত্তি দেখে লাগে ভয়, কিন্তু ভক্তে বিতরিছে বরাভয়, অকিঞ্চনে কয়, সামন্ত ত নয়, ব্রহ্মময়ী উদয় হয়েছেন সাকারে ॥ பகடிமம்