পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬২ ছেড়েছি পিরীতের আশা, পিরীত তোমার বাস ভেঙ্গে যাও। যার সঙ্গেতে এসেছিলে আমার অঙ্গেতে, সে গেল—আর তুমি কেন, দুখিনীর মুখ দেখতে চাও। তাইতে বলি পিরীত আমি, ছেড়ে যাও তুমি। এক্ষণে, তোমারি সনে, থাকৃব, কেমনে আমি । তুমি পিরীত আত্মহুখে মুখী। অনাথিনী বিরহিণীর কাছে তোমার কার্য্য কি। তুমি পর, আমি পর, সেওত পর, পর মজানে পিরীত তুমি মিছে আর অঙ্গ জ্বালাও ॥ কোথা রে যুবতীর যৌবন, তোমা বিনে নারীর মান গেল, নবীন কালে দেচে ছিলে, প্রবীণ কালে কোথা গেলে, তোমায়ু হয়ে হার, হয়েছি কাতর, আপন বসু এখন পরের প্রাণ হ’ল । নবীন বয়সে রঙ্গরসে দিনে দেখা হত শতবার । নীরস নলিনী এখন ভ্রমর, চাইবে কেন ফিরে আর। আগে প্রাণ হল, তার পরে হলো যৌবন ঘটনা, বিধাতার একি বিবেচন, যৌবন গেল, প্রাণত গেল না। আমি কি ছিলাম, কি হইলাম, আর বা কি হই, সেই অনুতাপে আমার তনু শুখাল । க_ற்ற তোমার ভাল-বেসেছিলাম বলে কিরে, প্রেম আমার দুকুল মজালি। দু'মাস না যেতে, দারুণ বিচ্ছেদের হাতে, আমায় সঁপে দিয়ে কিরে ফেলে পলালি । দিবানিশি প্রাণে জলি, তাই তোমায়ু বলি, আমি সাধে কি বিষাদে রয়েছি। করে—না বুঝে—লোভ, শেষে পেয়ে ক্ষোভ, বলি কাকে চোখে দেখে শিখেছি । যেমন মৎস্ত মাংস-ভোগী, হয়েছিল জল্লুকী, তুই কি আমার ভাগ্যে এখন সেইটা ঘটালি। } | | | | | | বাঙ্গালীর গান । প্রেমেতে মজিয়ে চিরদিন রব, প্রাণ জুড়াব, ছিল বাসনা । ত্রিরাত্রি না যেতে তাতে একি বিড়ম্বন । আমি তোমার জন্ত হ’লাম পরবশ, আগে মান খোয়ালেম্, কুল মজালেম, দেশ বিদেশে অপমান আর অপযশ । আগে দেখিয়ে বাড়াবাড়ি, করলে ছাড়াছড়ি । শেষ আমার মাথার তুলে দিলে কলঙ্কের ডালি ; பமாறு তারে বোলে! গে! সখি, সে যেন এ পথে এসেন পোড়া লোকে মন দৃষে দেয় গঞ্জন ॥ অকিঞ্চন-স্বতে গলেতে গেঁথে, | | পেরেছিলাম প্রেমোহার। ত্রিরাত্রি না যেতে, হোলো গে৷ তাতে, বিড়ম্বন বিধাতার। সখি সে কোথ, আমি কোথা । না জেনে, ন শুনে, লোকে কয় নান! কথা । আমি পিরীতি করিতাম প্রাণে প্রাণে ॥ বঁধু কোন ভাবে এ ভাবে দরশন। কোরে মধুর মধুর আলাপন। কত দিনো প্ৰাণো তুমি হয়েছ এমন । প্রিয় বাক্যে প্রেয়সি বলিয়া আমায়ু । ডাকিছ প্রেম রসে রসরায় । ভুজঙ্গেরো মুখে যেন মুধ বরিষণ ॥ বল কার অনুরোধে ছিলে প্রাণ ? ছিলে আমার বশ, কি যৌবনের বশ, fক প্রেম বশে, প্রেম রসে, তুষিতে হে প্রাণ। তখন রাখিতে হে বিধিমতে মানিনীর সম্মান। অভিমানী হ’তাম হে তোমায়, প্রাণনাথ কার সোহাগে, অনুরাগে, ধৰ্ত্তে আমার পায়। তুমি আমি যে সেই আছি, তবে কি দোষে গেলহে আমার মান ॥ আবাহন করে প্রেম দিলে বিসৰ্জ্জন । , &