পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাম বস্তু । আমার কপালে অল্প ভোগ, প্রেমের কল্পযোগ করা ভার। ত্রিরাত্রি না যেতে অত্রযোগ, কেবল কৰ্ম্মভোগ সার | যাও প্রাণনাথের কাছে বিচ্ছেদ একেবার। যাতে বদ্ধ আছে বঁধুর প্রাণ, হানো গে তায় বিচ্ছেদ-বাণ, যদি জালায় জোলে, আমার বোলে মনে পড়ে তার ॥ যাতে মন্ত আছে—সে যে মত্ত মাতঙ্গ । কর গিয়ে সে প্রেমের মুঙ্গতো ভঙ্গ । তুমি গেলে তার প্রবৃত্তি, বসন্তে বিদেশী হেয়ে রবে না সে আর ॥ বিরহিণী আমি রমণী, পতি প্রবাসে আমার। যৌবন কালে হেয়েছি, আশিতা তোমার। ওহে বিচ্ছেদ, তোমার বিচ্ছেদ দায়, নাথো ন জানে । অন্য নারীর প্রেমোমুখে, আছে সেখানে । তারে জ্বালাতে পার না, আমায়ু দেও যাতনা, ছি ছি অবলা বধিলে নহে পৌরুষ তোমার ॥ সকাতরে ইরে বিচ্ছেদ করি তোরে মিনতি । কামিনীরো প্রাণ রেখে, রাখো মুখ্যাতি ॥ হোয়ে আমার অস্তরের অন্তর, নাথের অস্তরেতে যাও । প্রণয় কোরে অপ্রণয়, প্রণয় গে ঘটাও। বিচ্ছেদ-ব্যথার ব্যথা, কিছু তায়, দিও বিশেষ। নারীর প্রাণে কত ব্যথা, জানে যেন সে । আমায় কোরেছে স্কুলে ভুল, ভেবে হোলো প্রাণাকুল, অকুলেতে কুলরক্ষা কর কুলজার ॥ সে যেন এ কথা শুনে না । দেয় বসন্তে আমারে যাতন ॥ শশীর কিরণে প্রাণে জ্বলে, জলেতে নাহি জুড়ায়। অমনি হবে নিবৃত্তি, S७१ বিষপ্রায় যদি চন্দন মাধি গায়। “শেল-সম হোলো, কোকিলের গান। মলয় মারুত অগ্নি সমান। এদেশের এ বিচার, শুনিলে নাথের আর পুন পদার্পণ হবে না। J যাকৃ প্রাণ, প্রাণনাথ যেন সুখে রয়। থেকে দেশান্তর, দহে নিরন্তর, তারে নিন্দে করি পাছে পতি নিন্দ হয় । আমি মরি, সচচরী, তহে করিনে ভয় । দেখ আমি মোলে কত শত মিলবে তার। সখি সে পিনে, কে আছে গো আমার ॥ আমায় ত্যজিলে ত্যজিতে পারে, কে দৃষিবে তারে। আমার পূজ্যধন বই ত তাজ্য ধন নয় ॥ গেল গেল, কুলো কুলো, যাকু কুল, তাহে নই আকুল। লয়েছি যাহায় কুল, সে আমার প্রতিকূল। যদি কুল-কুণ্ডলিনী, অনুকলা হন আমায়। অকুলের তরী কুল পাব পুনরায়। এখন ব্যাকুল হেয়ে কি কুকুলো হারাব সই, তাহে বিপক্ষে হাসিবে যত রিপুচ । হর নই হে আমি যুবতী। কেনে জ্বালাতে এলে রতিপতি ॥ কোরে না আমার দুর্গতি । বিচ্ছেদে লাবণ্য, হয়েছে বিবর্ণ, ধরেছি শঙ্করের আকৃতি। ক্ষীণ দেখে অঙ্গ, আজ অনঙ্গ, একি রঙ্গ হে তোমার। হর ভ্ৰমে শরাবাত, কেন করিতেছ বার বার। ছিন্ন ভিন্ন বেশে, দেখে কও মহেশে, চেন না পুরুষো প্রকৃতি। হায় শুন শস্তু-অরি, ভেবে ত্রিপুরারি, বৈরী হয়োন আমার ।