পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কৃষ্ণমোহন ভট্টাচাৰ্য্য । S、● ○ রাধে, কেঁদেছ যার আশীতে নিশিতে, কতু কুবুজায় সুন্দর, করি হে সুন্দরি, সেই শুাম প্রভাতে উদয়। • কখনো ধরি রাধার রাঙ্গা পায় ॥ কুঞ্চ অতি মিংমাণ, তাহে লজ্জ-ভয় — | সকলে জানে সই, রসমই! আমি ইচ্ছাময় ; মুখে আধ আধ ভাষা, গগলগ্নবাস, জগং ব্রহ্মাণ্ডের স্বষ্টি স্থিতি লয়, কাতর মাধব অতিশয় । সই রে, আম হ’তে হয়। দেখে রূপের ছাদ, পাছে রাই হয় উন্মাদ, কভু ইচ্ছা করে করি রাজত্ব — • কৃষ্ণ আগে তাই পাঠিয়ে দিলেন আমাকে। করি কখনো স্বাটালি, কখনো রাধার দাসত্ব। যদি স্বেচ্ছা হয় বল গো প্রধান গোপিকে। কভু গোষ্ঠে চরাই গোধন, কৃষ্ণ সেজেছেন অতি বিপরীত ;– কতু গোপের উচ্ছিষ্ট করি হে ভোজন, যেন গ্রহণন্তে শণী, উদয় হ’ল আগি, কভু বঁাশীর গানে ভুলাই গোপিকায়। সৰ্ব্বাঙ্গে কলঙ্ক অঙ্কিত। কৰ্ভু ভিক্ষা করি মানমনিনী রাধার মানের দায়। নাহি সৰ্ব্বঙ্গে মুরাগ, স্দে কলঙ্গের দাগ, কতু করে ধরি গিরি গোবৰ্দ্ধন ;– নাহি লাবণ্য কালার্চাদের চাদৃমুখে ॥ ইন্দ্রদেবের ভয় হ’তে, রক্ষা করি গোপীগণ, பிற காம் কতু পূতনা করি নিধন, কভু করি গো সখি, আমি অনন্ত, আমার অন্ত কেবা পায় । কালীয় দমনকভূউদ্ভূখলে বঁধেন যশোদাআমায়। কৃষ্ণমোহন ভট্টাচাৰ্য্য। صحسی که حیحی هم محسسه ইনিও কবিব দলের গান রচনায় বিশেষ প্রতিপত্তি লাভ করিয়াছিলেন। ভোলা ময়রা, নীলু ঠাকুর প্রভূতির দলে ইনি গান বাধিয়া দিতেন। গদাধর মুখোপাধ্যায় ও ঠাকুবদাস চক্রবর্তী প্রভৃতি সঙ্গীতবরিতাদিগের ইনি সমসাময়িক ছিলেন। ইনি মাধুর গান বচনায় বিশেয মুখ্যাতি লাভ করেন। ইনি কবির দলের বেতনভোগী গান-বাধনদার-রূপে জীবিক-নিৰ্ব্বাহ করিতেন। আজ কৃষ্ণ ! চল হে নিকুঞ্জবন, করে যজ্ঞের সঙ্কল্প প্যারী প্রণাহুতি যজ্ঞ করবেন রাই, লং তারি নিমন্ত্রণ। আছেন যজ্ঞবেদতে বসিয়ে; আছেন চন্দ্রমুখী রাই, চাহিয়ে ও চন্দ্ৰবদন সজল জলধরে করিয়ে ধ্যান, তুমি যে ছলে গুমিরা, এলে মথুরায়, । তৃষিত চতিকিনী হয়ে। হয়ে এক যজ্ঞে নিমন্ত্রিত ; তোমার বিচ্ছেদ হুতাশন, ক'রে সংস্থাপন, করলে সে যজ্ঞ সমাধান হ’ল তা জগতে বিদিত। সমিধ আপনারি অঙ্গ ; আবার এক যজ্ঞ হবে ব্ৰজধাম ;— যোগিনীর প্রায়, আছেন মেনে, শীঘ আসি তাও পূর্ণ কর শুাম! | ত্যজিয়ে সখীর সঙ্গ ॥ আমরা অবলা গোপবালা, করেছেন রাই আত্মমনসংযোগ ;– অনেক দুঃখে করেছি সব যজ্ঞের আয়োজন। অপেক্ষা নাই সবই হয়েছে ত্রিযোগ । তুমি হে যজ্ঞেশ্বর দয়াময়, আপনি কৰ্ত্ত হয়ে, সম্মুখে দাড়ায়ে, তোমা বিনে যজ্ঞ নাহি পূর্ণ হয়। | দুঃখিনীর যজ্ঞ কর সমাপন ॥ মানসে মানসে রাই করবেন সে যজ্ঞ, கர তোমার ঐ শ্ৰীচরণে সমৰ্পণ ॥