পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৩৭২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


a、bre প্রণয়-সঙ্গীত । খাম্বাজ –রপক । মিলনের মুখোদয় যখন হয় তখন কুল-মানের অনুরোধ না রয় ! পিয়ে প্রেম-রস, হইলে অবশ, অপযশের ভয় নাহি রয় ! ব্ৰহ্ম-পদে প্রাণ নাহি ধায় ; হায় ! হায়! হায় ! সদা প্রেমের পথে বিচরয়। হাঙ্গীর—খয়রা। স্বাধী যার কাছে মন, সেই মোর প্রিয় জন; সে জনে দরশনে, সদা প্রয়োজন। এসেছে যে দিন বলে অল্পদিন, I গেছে সেই দিন, হবে বহুদিন যারি অদর্শনে লাচিনে দাচিনে, জ্বলে মরি প্রাণে, ধৈর্ধ্য নাহি মানে, | আর কত মনে, প্রবোধ বচনে, বাঁচে এ জীবন ॥ । পরজ-ঠেকা । . পিরীতি করিলে তার, দিবা-নিশি জলে মন । অনঙ্গ মত্ত মাতঙ্গ, মন-বন-ভঙ্গ করে । বিধির অসাধ্য সেই কার সাধ্য বাধে তারে । , সতর্ক কৰ্ম্ম করণ, সমুলে করে দলন, বিবেক বজ্ৰ অঁটন, ভঙ্গ ক’রে ফেলে দূরে। উপদেশ তরুগণ, শিক্ষা-শাখায় সুশোভন, সমুলে করে ভঞ্জন(মদেরই) আমেদে ফেরে প্রবোধ-বৃক্ষ-মিলিতা, বিবেচনা ক্ষমা লতা, ধৈর্য্যপুষ্প বিকলিতা, ক্রমে সকলি সংহরে। মান মুগ উচাটন, দূর করে পলায়ুন, লজ্জা-ভয় পক্ষীগণ,উড়ে যায় দেশাস্তরে ॥ খাম্বাজ~ ঠেকা । মন কেমনে মুখে রবে, মানিলে পরেরি কথা । পোড়া লোকে তাই করে,লাগে যাতে প্রাণে ব্যথা মজেছি দিয়েছি প্রাণ, করেছি প্রেম-বিধান, যায় জাতি কুল-মান, সে ভাবনা ভাবি বৃথা ॥ বাঙ্গালীর গান । খtাজ-ঠেকা । প্রাণপণে যতন কৰুে পেয়েছি পরেরি মন । পোড়া লোকে কেন এত ঘুচাতে করে যতন ॥ প্রেমে পরাধিনী হয়ে, দিবা-নিশি মরি ভয়ে, পাছে কুমন্ত্রণ দিয়ে পরে করে জালাতন ।

  • _ - -

제 5-(제1 | বারণ কে করে বলে, সরল হইতে । বিধান কে দেয় বলো, চাতুর করিতে ॥ যে তোমার অনুগত, তাহারে করে বঞ্চিত, এ নহে তব উচিত, না পারি সহিতে ॥ Jv খাম্বাঞ্জ-—ঠেকা । যদি একবার মন বলে—সে জনে ভাবিব না ! সেই স্থলে প্রাণ বলে—এ দেহে থাকিব না!" কি করি প্রাণের দায়, মন, সেই পথে ধায় ; আর কত দিন, হেবিব সে দিন, সে বিধুবদন ; ; সেধে ডেকে এনে তাই, পুরাই বাসনা ! যে যা বলে, বলুক লোকে, কারু কথা শুনিব না । чнини і সিন্ধু—মধ্যমান। বড় চতুর (ও) হয় যদি কোন জন । পাইলে প্রেমেরি রস, সদা সে থাকে অবশ। দূরে রেখে অপযশ, প্রেম করে আভরণ ঝিকিট—মধ্যমৃান । এ সময়ে যদি তারে পাই, (প্রাণ চায় যারেরে) ; তবে এ যাতনা হতে জীবন জুড়াই। পরে যার প্রেমার্কাসি, লোকের কাছে হই দুষী, হেরে তার মুখশশী, মরি তাহে ক্ষতি নাই। निकू उब्रशै-भषाभांन । সারা হলেম, সারা নিশি জাগিয়ে। যামিনী পোঃালাম, কত যাতনা ভুগিয়ে ! বহু দিনের অভিলাষে, সুখ পুরাইবার আশে, বসেছিলাম আশা পথে গিয়ে ; কি দশ না হলে, সখি, ভালবাসা লাগিয়ে ॥