পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪২৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"එංIV श्रद्रप्ले-क७ङ्गणौ । নিল মুনি নীলমণি যে দিন। আমার মনে হইল সেদিন, ফিরে কি আর হবে আমার মুদিন । যে থাকে না তিলেক ছেড়ে, সে আমায় গিয়েছে ছেড়ে, জানলে কি রে দিতেম ছেড়ে, গোকুল ছেড়ে সঙ্গে যেতেম সেদিন ॥ “ও মা, যাই যাই” বলে, কারে বা সুধায় গো, “নেরে খারে ক্ষীর ননী" কে তারে বা কয় গো, কারে বা বলে জননী, কেবা দেয় ক্ষীর নবনী, খার কি রে সে ক্ষীর ননী । দুখিনীরে মনে হয় কি এক দিন ॥ ح پچیحصے দেবগিরি-কাওয়ালী। মরোরখ, যাও রথে । ত্যাজ্য করে স্তায্য পথে, কেন ভ্রম পথে পথে । পেয়ে সুপথ ভুল না পথ,এখন চল ব্রজের পথে ॥ পথের সম্বল মন হরি বল, হবে পথের জয় ; জেনো সবাই পথের পথিক, পথের পরিচয় ;— ধৰ্ম্মপথে রেখে যতন, যদি পথে হও রে পতন, হবে তোমার কালের দমন, কালীয়দমন ভাব চিতে ॥ সম্প্রতি দুৰ্ম্মতি তাইতে, পাঠাইলে কংস ; যে করে ব্ৰহ্মাণ্ড ধ্বংস, তারে করবে ধ্বংস; হ’লে হরির কোপের অংশ, কংস হুইবে নিৰ্ব্বংশ, স্বদন কয় এমন কুবংশ কাজ কি থেকে মথুরাতে ॥ यूरब्रप्ले-कt७ब्रांजौ । কি জানি কি হলো আমার মনে । কি শয়নেকি স্বপনে, কৃষ্ণরূপ হেরি দু-নয়নে ॥ যদি না ভাবি অন্তরে, তবু না রহে অন্তরে, কি আছে তার অস্তরে অন্তরে তা বুঝিতে পারিনে ॥ যদি থাকি আপন মনে, না করি মনে,—(এ), লে কেমনে মনে মনে উদয় হয় মনে—(এ), বাঙ্গালীর গান মনে পাইনে মমের কথা, তাইতে সদাই মনে ব্যথা, কারে বা কই মনের কথা, তোমা বিনে মন দিয়ে কে শুনে ॥ যে দিকে যাই, যে দিকে চাই, দেখিতে কৃষ্ণ পাই, কৃষ্ণভেবে কৃষ্ণবর্ণ বুঝি কৃষ্ণ পাই, কালরূপ চিনিনে কে সে, so নাম বুঝি তার হৃষীকেশ, ধরিল আমার কেশে, স্বদন বলে শেষে জনৃবে মনে ॥ বাহার-—মধ্যমাণ । বল হরে কুষ্ণ হরে হরে । ( ভাব রে ) জান না মুরারে হরে, যে ভজে সেই মুরহরে, তার কি প্রাণ শমনে হরে ॥ মন বধিলে মনোহরে, কার সাধ্য তার মন হয়ে, দেখে ভেবে মুরহরে, হরির গুণজেনেছে হরে ॥ শুন নাই প্রস্থলদের কথা, ভজে গুণমণি, এককালে হুইল বৈষ্ণবচূড়ামণি, ভুজঙ্গে না দংশে কায়, মাতঙ্গে না বধে তার, জীবনে না জীবন যায়, বিষপানে না মরে ॥ শুন নাই যে ধ্রুব মুদিত করে ই-নয়ন একমনে ছিল, পদ্মপলাশলোচন রক্ষা করিল, বনে বনে, কি মরণে, কি জীবনে, মধুসূদন ভজে স্বদন কভু কি পড়িবে ফেরে। বিভাস—টিমা-তেতালা । বলে তারে, কারাগারে আর কতদিন রইতে হবে। সে দিনের আর বাকী কদিন, চিরদিন কি কেঁদে যাবে ॥ এমৃনি কপাল পাথর-চাপ, বুকের মাঝে পাষাণ চাপ, নয়ন জলে নয়ন ঝাপা, শ্ৰীকৃষ্ণের পুণ্যপ্রভাবে ॥ পুণ্যফলে পুত্র কোলে পেয়ে যে ছিলাম, তেমনি সুখে বদিশালে জন্ম গোয়ালাম,