পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৪৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


मधूकांम । মৃদন বলে হরি, উছ মরে যাই তার বলিহারি, যে দিলে আগুন ॥ সরফরদা—টিমা-কাওয়ালী। চিনতে যদি চিন্তামণি, তবে কি আর চিন্তা গণি । চিস্ত করে কেনে মরবে ধনী ॥ চেন কি নাচেন হরি, আমরা চেন চেন করি, দেখেছিলাম ব্ৰজপুরী, ধেনু চরাতেন আপনি ॥ মাখনচোরা ছিলে ব্রজে কর হে মনে, নন্দের বাধা বৈতে মাথে পড়ে কি মনে, করিতে গোপীর বস্ত্রহরণ,এখন বুঝি নাইকো স্মরণ, আমাদের খুব আছে স্মরণ, বিস্মরণ কেবল আপনি ॥ বৃন্দাবনে নিধুবনে শ্রীরাধার মানে, দুট চরণ লৈতে মাথে নাই কি তা মনে, স্বদন কয় ও কথা কেনে, এখানে সকলি মানে, ক্ষমা দেও ও কথা মেনে, কাজ কি এত চেনাচিনি ॥ छग्नऊन्नखौ-छिमl-क७ब्रांजौ । গোকুলেতে মা বলিতে যারে, সে পড়ে ধূলার মাঝারে, আমায় কয়, চল মথুরার মাঝরে। নবনী লও আর দিব কি, নৈলে তার খেতে দিব কি, দেখব সে কেমন দেবকী কাচা ছেলে ভুলে কয় মা ঘারে। সে কি আমার থাকিবার ছেলে, ত্যজ্য করে মা—সবাই মিলে বলেছে মা, ঐ দেবকী মা মা;—ম পেয়ে ভুলেছে মায়ে, আর কেন ডাকিবে আমায়ে, বুঝব এবার মায়ে মায়ে, সেই হবে মাগোপাল মা কৰে বারে। বসুদেব হয়েছেন এখন দেবতার শ্রেষ্ঠ, অনায়াসে স্বরে বসে পেয়েছেন কৃষ্ণ, গয়ে যাব সকল দেবে, দেখিব কেমন বহুদেবে, গোপাল দিবে কি না দিবে, স্বদন কয় ছেলে কয় ধারে তারে। দেওগিরি—ঢ়িম-কাওয়ালী । তব মতার পিতার বিষয় বলিতে গেলে বিষ হয় । হেরে আমি জানলাম আশয়, বুঝি তাদের জীবননাশ হয় ॥ দেহে পড়ে অন্ধকারে, না বলব বা অন্ধ করে, সুধাইতে সন্দেহ করে, উঠতে পাছে জীবন শেষ হয়। জেনেছি শুনেছি হরি, তুমি জগতের গুরু, তুমি কি জান না শাস্ত্রে পিতা মাত মহাগুরু, এমনি কি হলো, দুর্দশ গুরুর আবার গুরুদণl, আমাদের কপালের দশা, তোমাদের পেয়েছে দশায় ॥ মাতা পিতার মৃত্যু হলে হবে তোমার কালাশুচি, অবশু হবিষ্য করবে তবে সে হুইবে শুচি, স্বদন কয় ভুলনা আমার, এবার লয়ে যাব গয়ায়, পিণ্ড দিব আপনার পায়, !) দেখব তাতে কি শোভা পায়ু ॥ ঝিঝিট-মধ্যমান। সব রাখাল লয়ে পাল দেখলাম ভূমেতে শয়ন। পড়ে আছে গাভীর গায় গায়, কেহ কেঁদে কালার গুণ গায়, কেহ বলে আর সয় না গায়, ত্যজিগে জীবন। কোন শিশু করে রোদন, ধরে গিরি গোবৰ্দ্ধন, কেউ বলে কি করিস্ ও তোর নয় ত কৃষ্ণধন, কেহ ফিরে ধেনু ধরে, বলে ঐরুপ কানু ধরে, নয়নে না বারি ধরে, অমনি ধরায় হয় পতন। কোন শিশু ধেয়ে নবনীতরুর ডাল ধরে, ডাল ভেঙ্গে ধায়, পত্র শুকায়,আর এক ডলধরে স্বদন কয় বার বিধি লাগে, যে ডাল ধরে সেই ডাল ভাঙ্গে, কপালগুণে পাষাণ ভাঙ্গে, এমনি তার ঘটন। জয়জয়ন্তীঢ়িম-কাওয়াদী দেখলাম কত নারী বসে তীরে। লয়ে সেই কমলিনীরে, নীরে নিবারিছে আঁখিনীয়ে।