পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৭১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোপাল উড়ে । কাওয়ালী। এ বসন্তে, বাচি কি না বঁচি প্রাণে। এমন কে ব্যথিত আছে, জল দিয়ে নিভায় আগুনে ॥ হু হু করে মন, পোড়ে বন, গো— যেমন জ্বলছে রাবণের চিতে হয় না নিবারণ, এ শরীর, নহে স্থির,অস্থির করেছে মদন-বাণে ॥ ठा'g1।। কেথে আছ প্রাণপ্রিয়ে ওলো শশাঙ্কবদনি। দেখা দিয়ে লুকাইলে ওলো বিদ্যুৎবল্লুণি ॥ না হেরে সে বিধু বয়ান, বিদরিয়া যায় প্রাণ, কে জানে পাষাণে নিৰ্ম্মাণ, তব নব তনুখানি । হানিয়ে কটাক্ষ-শর, এবে হইলে অন্তর, অস্তরে দহে অন্তর নিরস্তর দিবা রজনী ॥ Φümüπη μόνη কাওয়ালী । মরি মরি সহচর, কি করি উপায়। দাহন হতেছি প্রাণে, হলো একি দায়। ছলেতে হরিয়ে মন, কোথা গেল সেই জন, কে জানে হবে এমন, এবে প্রাণ যায় ॥ %९ो। প্রাণ যায় হলো একি দায় । কেন দেখাইল তারে, মালিনি আমায় ॥ হেরিলাম যতক্ষণ, সুখে ছিলাম ততক্ষণ, হলে অস্তুর নয়ন, দুঃখ;হলো তায় । যে অবধি আর তারে, নাই পাই হেরিবারে, এরূপ করে আমারে, গেল সে কোথায় ॥ মজিল আমার মন, মজিল না সেই জন, কেন হেন অঘটন ঘটিল আমার। আগে জানিলে এমন, হেরিও কি এ নয়ন, কি করি মরি এখন, রিহণে উপায়। আড়খেমটা । ब्राउनि, डांवम कि अप्र बल । দিলে গঙ্গাধরে গঙ্গাজল ॥ ©ማ፩› মনে প্রণে ঐক্য করে, পূজা কর মহেশ্বরে, পাবি ল তুই আপন বরে, তাহার বরে, এই বেলা দে বিল্বদল ॥ আমি আই, নাতিনী তুমি, তোমার দুঃখে দুঃখী আমি, কতদিনে পাবে স্বামী, ভাবি আমি, ভেবে, রোচে না আর অন্নজল ৷ আড়খেমটা । আই, এ কোন ভালবাসা। কেবল মিষ্ট কথায় মন তোষ ॥ বুঝা যায় না কান্ন-হাসি, অন্তরে গরল-রাশি, লোক-দেখামো দেঁতোর হাসি, মিষ্ট ভাষী, স্বধু, মিষ্ট ভাষায় দাও লো আশা। নামটী যেমন হীরে তোমার, কথায় তেমূনি ইরের ধার, ধারে মাছি বসা ভার, বলবো কি আর, নাইক কমি-বেশি তৈালা-মাষ৷ আড়ধেমট1 নাতনি, এ কোন লো কথা। বলি, তোর সনে কি মোর শঠতা । তোর তরে মন যা করে, তা হরি জামেন, ওলো নাতনি,—গুরু জানেন মৰ্ম্মব্যথা ॥ জলেতে ক’রে স্বর বাড়ী, কুমীরের সঙ্গেতে আড়ি, ফুল বেচে খাই বাড়ী বাড়ী, তাও কি পারি, ওমা, লজ্জায় মরি, যব কোথা ॥ কাওয়ালী। ওগো আই, ধরি তোমার ছুটি করে। আমার মাথার কিরে বলে গুণধরে ॥ তিনি ভিন্ন অন্ত জনে, নাহি লয় মম মনে, সঙ্গোপনে সুদর্শনে হবে অলিপিন,— তা না হলে বলে কিসে রবে মম পণ, দেখ না রুক্মিণী নারী, মম সঁপে পণ কল্পে জারি, § 尊 শুষ্ঠ হতে দেখ হরি, কেশাকর্ষে হরে ৷ ” admodumb