পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোপাল উড়ে । \Obبه م ভুলে না ভুলো না মনেরি ভ্রমে, পুৰ্ব্বের ভানু যদি উঠে পশ্চিমে, সন্ন্যাসী আমায় সেও কি জিনে, বিচারে কখন পারে কি জিন্তে । দৃষ্টিমাত্র সখা যে হরিল মন, | জীবনের ধন, জীবনের জীবন, | পায় যদি রতন, করিয়ে যতন, ভুলিতে কি পারে জীবন অস্তে ॥ পতিব্ৰতা সতী সপতি বিনে, | | স্বধী কি কখন হয় সে মনে, পতির মরণে, সতী মরে প্রাণে, ধৰ্ম্ম বিনে কে পারে জানতে ॥ কাল|ং৮}—এক ভাল ; আমার গতি কি হবে বল রসবতি । প্রিয়-সনে প্রেম-রণে হইলে প্রবৃত্তি ॥ নানাবিধ আয়োজন, রেধে পঞ্চাশ ব্যঞ্জন, ভোজনকালে কর বারণ, এ কেমন বিপত্তি | কাওয়ালী । বিধুমুখি, মুখী তুমি হলে লে| এখন। তপস্বিনী হয়ে তীর্থ করিবে ভ্রমণ ॥ প্রয়াগ মথুরা কাণী, যাবে তীর্থ-বারাণসী ৷ হরিদ্বার দ্বারিকাধামে করিবে গমন ;– ছাই মেখে আই সেণার অঙ্গ হবে সুশোভন ॥ শেষে গঙ্গাসাগর যাবে, বসে বসে ঢেউ খাবে, গাছতলায় গাছতলায় রবে, গছ তলায় শয়ন। আমায়ু দিয়াছিলে আশা, সে আশা হলো নৈরাশ, মন-আশ মনে মনে হলো নিবারণ,— হয়, কি বলবো মম কপালের লিখন। পাক1আম কাকে খেলে, চোরের ধন বাটুপাড়ে নিলে, হাত পোড়লাম তপ্ত জলে, হলো অরণ্যে রোদন ॥ কলো ভূ-কাওয়ালী । কি বলি ফুটে, দম ফাটে মরি প্রাণ যায়। সরমে মরমে মরি, কাদিনে লজ্জায় ॥ বিচারে পরাস্ত ধনি, যদি হও লো চাদবদনি, হতে হবে সন্ন্যাসিনী, কি আছে উপায় ;– দেবে তায় কি করে বিদায়, নমঃস্বস্তি বলে যখন সঁপে দিবে পায়ু ॥ যেমন বিধির দৈবযোগে, চলের সুধা রাহুর ভোগে, তেমুনি বুঝি আমার ভাগ্যে অভিপ্রায় হবে – কি হবে—আমার কি হবে,— মুখের গ্রাস কেড়ে ল’বে, বলিব কাহায়ু ॥ கம்க কলেtংড়—কাওয়ালী । আমার গতি, কি হবে বল চাদবদনি। তুমি তো আনন্দে রবে হবে নবীন সন্ন্যাসিনী ॥ দেখ দেখি দুকুল মঙ্গে,বর থাকৃতে বাবুই ভেজে, তোমার প্রেমেতে মঙ্গে, কুলমান ত্যজে,— আশা দিয়ে রেখেছিলে, তৈয়ের অন্নে ধূলা দিলে, এ দুঃখ যাবে না মলে, ভুলব'ন লো ধনি। শুন ওলে রাজনন্দিনি, তোমার এখন দুধে চিনি, আমার ভাগে শাকে বলি—দিলেন ভগবান— ন পূরিল মন-আশা, ন ভঙ্গিল প্রেম-পিপাসা, যা করেন কপালে এখন কালী কুলকুণ্ডলিনী। ம்ே_ _ কাওয়ালী | সখা, কি জন্তে যোগি-সনে হব যোগিনী। যে করেছে পণ ভঙ্গ, বাড়াইয়ে প্রেম-তরঙ্গ, রঙ্গ-রসে থাকৃবে। আমরা দিবস রজনী ॥ সন্ধ্যাপতে কার্ঘ্য নাই, সকল তীর্থে দিয়ে ছাই, আছ, সৰ্ব্বতীর্থময়-গঙ্গা তুমি গুণমণি। ছাই দিয়ে যোগীর মুখে, আমরা রব পরম মুখে, শারী-শুক যেমন থাকে সঙ্গের সঙ্গিনী । কাওয়ালী। অবাক মুখে বাকৃ সরে না কথা কব কি। ভাবে বুঝলাম, সশার পিরীত সকলি ফাঁকি। মনের আপৃসোস মনে রৈল, শুনে প্রাণ সন্তুষ্ট হ’ল, কষ্ট মই প্রাণ, যাতে তুষ্ট থাক,—