পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোপাল উড়ে। s আড়ধেমূট। নাতনি, ঠাট করো না বেশী। তোমার রবে না আর টাটকা বাসি। ভুকে অতিথ পতিত এলে ভোগ পাইবে, ওলে নাতনি, ভোগ পাইবে দিবানিশি ॥ কক্ষে ঝুলি টুক্‌নি করেফিরবি কত আকড়া-ঘরে, রবি কি আর এমন করে, এ পিঞ্জরে, যাবি গঙ্গাসাগর গয়া-কাণী ॥ আড়ধেমূটা । তোমার এই হ’ল কি শেষে। শুনে মরি লো মনের আপসোসে। পরে গেরুয়া বসন, করবি ভ্রমণ, নিত্য নিত্য তীর্থবাসে ॥ করলি যত শিবব্রত, সকল হল ভূতগত, আনিয়া ব্ৰহ্মার স্কৃত, ভৰ্ম্মে ঢাললি অনায়াসে। আঙুখেম্টা। এখন, থাকৃলো বিনোদিনি। হয়ে নূতন নবীন সন্ন্যাসিনি। এনে দিনু মনোমত ধন, ক’রে যতন, ওলে চিনৃলি না সে রতনমণি। যেমূনি লো তুই রূপের ছট, বর মিলেছে মাথায় জটা, শিখবি এবার সিদ্ধি ঘোটা, গাজা কাটা, কাটুবি গাজা দিন-রজনী। পূজা করে গঙ্গাধরে, ভাল বর পেলি তার হরে, মনে হলে দেখবি বরে, দিগম্বরে, দিগম্বরে সে বেশখানি ॥ অtড়খেম্টা। আমা বলে নয় গে| আই, এমন পপ অনেকে করে। সীতা যে পণ করেছিল, পতি পেলেন রঘুঘরে। ক্রপদ নামে রাজা ছিল, cछोभौ ७ब्र कछ ९%, সেহ তো পণ করেছিল, পত্তি পেলে পাওরে। \ల్సి) ༧ གཏེ།:་ gi? चांढ़tर्षभूम्ने। নাতনি, নবযৌবন গেলে। মধু কথাতে কি নাগর ভুলে। শুনা আছে পরস্পরে, সরোবরে হংস চরে, বিল শুকালে চায় না ফিরে, যায় গো সে চলে ॥ Φπίπmanuo আড়ধেমূটা। আই, মিথ্যে আমায় বল। জানি তোমার যত শলা কলা ॥ নিত্য করি কৃতাঞ্জলি, আনতে বলি, কেবল আমার কাছে কর ছল ৷ মাসাস হয়ে নাতনী বল, বুঝেছি চাতুরী-ছল, তোমারি তো হলো ভাল, আর কি বল,— এখন বাবে পিরীত তলা গলা। সুখে নাতজামায়ের সঙ্গে, সদা রবে রস-রঙ্গে, আমি ফিবে রাঢ়ে বঙ্গে, যোগীর সঙ্গে, বুঝি, যোগ করে করেছ শলা। আড়খেম্টা। তুমি শঠ, সে লম্পট, ভাল মিলেছে দুজনে। হয় নির্জনে সঙ্গোপনে, যার যে বাসনা মনে ॥ চারিদিকে কুসুমবন, নাহি অন্তের সমাগম, তাহে আবির্ভূত মদন, লয়ে পঞ্চ শরাসনে ॥ আড়খেম্টা। মনে ছিল যে বাসন । পোড়া কপালক্রমে তাও হ’ল না ৷ শিব গড়িতে বানর হ’ল, এই কি বিধির বিড়ম্বন৷ হয়েছিলাম অভিলাষী, হবে তুমি রাজমহিষী, আমরা হব প্রিয় দালী,মন যোগাব এই কজলা৷ আড়খেম্টা। সখি, চাই নে সে সন্ন্যাসী। আমি সেই জনারই কেলা দাসী। মন-প্ৰাণ লয়ে যে বা, গলায় দেছে প্রেমের কালী।