পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রসিকচন্দ্র রায় । 8Հ Տ মল্লার । জৎ । যায় দিন দীন দয়াময়ি, দীমের কি উপায়। যদি রাখ পায়, দাম দিন পায়, নলে নিরূপায়, করুণ কটাক্ষে দীনে তার মা কৃপায়। গেল দিন এল দিন ও দীনতারিণি দীন প্রতি দিন দাও শমনবারিণি, নিকট বিকট অন্তদিন জননি, তাইতে রসিকচন্দ্র রাঙ্গা চরণ চায়। মুলতান—একতালা । ডাকি মা অভয়ে, ভয়ে, ওগো অভয়দায়িনি। জাগ মম হৃদকমলে, কালি কুলকুণ্ডলিনি। শমনভয়বারিণী তারিণি ত্রিগুণে, ত্রিগুণি ত্রিপুরেশ্বরি বিখ্যাত ভুবনে, জীবাত্মা ও পরমাত্মা পরমেশ্বরি। গুরুদত্ত তত্ত্ব তৃংহি শিবে শঙ্করি, বরদে সারদে, সার দে সার দে, দে মা অভয় দে রসিকচন্দ্রে রাখ পদে, ওগো বিপদনাশিনি ॥ ভৈরবী—আড়া। সৰ্ব্বনাশি, সৰ্ব্বগ্রাসি, সৰ্ব্বেশ্বরি ও মা তারা। আমারে বিরূপ কেন মা, আশুতোষ মনোহর । ওগো শিবে মহামায়া, কে বুঝে তোর মহা মায়ু রসিকচলে দয়া মায়,কিছু নাই তোর একি ধারা। त्रिंदिहै-५िमि । জয় রাধা শ্রীরাধা বলে ভাই। বারেক বাজাও বংশী রাখালের জীবন কানাই। আমরা কৃষ্ণধনে ধনী শুনিব বংশীর ধ্বনি, যে ধ্বনিতে ভুলে ধনী, ব্রজের কমলিনী রাই। কি গুণ জানে বঁাশরী,বাঁশরী বলে—“কিশোরী” কেমনে গুণ পাসরি, আহা মরি মরে যাই ॥ আলাইয়া—একতাল।। ওরে হুবল ভাই, আজ কি কানাই গোষ্ঠে শোভা পায় রে। যেন কোটি কোটি শশী, ঐচরণে পশি তিমির নাশিছে তারে। পদ্ধবিম্ব জিনি কি বা ওঠাধর, পদ্মনাল সহ যেন পদ্মকর, কটধটি বেড়া রূপমনোহর ভুবন ভুলায় রে। কামুর চরণ কিরণ কি সাজে, ভানুর কিরণ লুকাইল লাজে, কি সাজে নূপুর, কি বাজে মধুর, রুণু ঝুণু শোনা যায় রে ॥ থাম্বাজ-একতাল । কোথায় কৃষ্ণধন রাখলের জীবন, দেখ দেরে ভাই, গোষ্ঠে আসিয়ে। লয়ে ক্ষীর ননী, তোর মা নন্দরাণী, ঐ যেরে ডাকিছে গোপাল বলিয়ে। যখন সুধাবে বল দেখি ভাই, কেমনে বলিব সঙ্গে কানাই নাই, যশোদ। আর নন্দ কেঁদে হবে অন্ধ কোথায় রেগোবিন্দু আছ লুকাইয়ে। विक्षिप्ले-यषायांम । মুধালে কি কব যশোদায়, একি দায়ুরে । জন্মের মতন তুই কি কৃষ্ণ হইলি বিদায় রে, রাধার হ’ল কি প্রেম দায়, কি বলিব সে প্রমদায় এমন করি ফেলিয়ে দক্ষ, গোষ্ঠে কি কাদায় রে ॥ πα: Εφρω আলাইয়া—একতাল। কেন রে সুবোল, না বলে সুবেল, শুনালি আমায় এসে । শুনে অঙ্গ জ্বলে, শোকসিন্ধুজলে, গেল গেল আমার নয়ন ভেসে । সে যে আমার গোপাল, অতি দুধের গোপাল, প্রাতে উঠে গোপাল ল’য়ে গেল গো-পাল, গেষ্ঠে রেখে গো-পাল কোথায় গেল গোপাল, গোপাল এল কৈরে গোপালবেশে ॥ विष्ठांव-त्रांप्लां । ওগো নদরাণি, কেন নিরানন্দ হও। পেয়েছ পরমানন্দ, পরম আনন্দে রও। রাণি গো তোর জীগোবিন্দ জগতে জগতানন্দ, মিলে মদ উপনদ, সবে হরি হরি কও।