পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্যারামোহন কাবরত্ব । ভৈরবী—কাওয়ালী। মন নিৰ্ব্বাণ-নগরে যদি রবে । সমভাব ভাব সবে, লম্বোদরে, দিবাকরে হরে কালী কেশবে ॥ ঈশ্বর নিরাকার, নিত্যানন্দ নিৰ্ব্বিকার, সাধক হিতসাধনে ধরেন রূপ অপার – কখন প্রকৃতিরূপ। কখন পুরুষাকার, মানস মণিমন্দিরে, দ্বৈতভাব কেন তবে ॥ এক স্বর্ণে অলঙ্কার, গঠন বিবিধাকার, বাউট বাল কণ্ঠমালা ঝুমকে সিঁতি চম্পৃহার,— আকার প্রকারভেদে নানাবিধ নাম তার, একত্রে সব গলিয়ে দেখ পুনৰ্ব্বার স্বর্ণ হবে। ভিন্নাকার ভিন্নবেশ, দেখে করোনাক দ্বেষ, অনন্ত নরকানলে পাইবে অনন্ত ক্লেশ, একূল ওকুল তব দুই কুল যাবে শেষ, ঈশ্বরদ্বেষীর কভু নিস্তার নাহিক ভবে। যেমন ভারীর ভার, দুইদিকৃ সমভার, একদিক ভাঙে যদি দুই দিক যায় তার প্যারী বলে কাণী কৃষ্ণ অভেদ অস্তরে যার, সে জন সাধক সাধু মরণে মঙ্গল লভে । গৌরী-একতাল।। কাণী যে কেমন ধন কে জানে । ধ্যানে কি জ্ঞানে বাক্য মনের অগোচর আগমে র্যারে বখানে ॥ চিন্ময়ী চিংস্বরূপ চিত্তক্ষেত্র-চারিণী, ব্ৰহ্মমাতা বরপ্রদ ব্রহ্মরন্ধ-বাসিনী, সহস্ৰদলেতে সদা থাকেন ঈশানসনে । প্রকৃতি পুরুষ রূপে লীলায় করেন নৃত্য, সুখদুঃখ পাপপুণ্য কিছুতে নন্‌ লিপ্ত, কৰ্ম্মফলে ভূমণ্ডলে ভোগে মাত্র ভূতগণে । ঘটে পটে মঠে কাঠে যে ভাবে যে কল্পনায়, কৰ্ম্মফলে কালে আসি কালী দেখা দেন তায়, পুরতে সাধকের সাধ সাকার হন স্বগুণে। আশুতোষ আজ ইন্দ্র ধাদবেন্দ্র যে মায়ায়, মৃণালের তত্ত্বমধ্যে পলকেতে আসে যায়, পাষণ্ড প্যারী ভৰে সে কাণী পাবে কেমনে ॥ 88 f মুলতান—তেণ্ডাল । ঐ লেংটা মেয়েট এলো সমরে। চেয়ে দেখ ভূপ, কি বিকট রূপ, মড়ার মাথা, গলায় গাথা, মড়ার আঙ্গুল কোমরে। যে বাণ হানিলে রোষে, সাগর সলিল শেষে, সে বাণ অনাসে গ্রাসে, স্থা ক’রে। দেখ না ভঙ্গি, হয়ে উলাঙ্গী, যেন মত্ত মাতঙ্গী বামা হেরে প্রাণ শিহরে। 来源 米 料 将 জয় জয়ন্তী—ঝ পতাল । ভব-হৃদিরুহ-রাজে, যে রমণী মৃগরাজে। রণেতে কলি জং, দুৰ্জয় দনুজরাজে। নাগরাজে নগরাজে, যক্ষরজে পক্ষরাজে, পাইল রাজত্ব পদ, পুজে যে পদ-পঙ্কজে। রাবণ রাক্ষসরাজ, যে চরণ করি পুজা, হ্রাসূবে দিলে সাজ, অশ্ব পালে যমরাজে। পাইল রমণী রাজে, রাঘব কানল মাঝে, নীলাজবরণী মাকে, স্ট্রেবিয়ে স্বনীলাম্বুজে। যে চরণ করি ভুষ৷ অনিরুদ্ধ পেলে উষা, ব্ৰজাঙ্গন ব্রত ফলে, ব্রজল্লুমে ব্ৰঙ্গরাজে। অমরে অর্চনা করি, মহামায়া মহেশ্বরী মহিষমৰ্দ্দিনী রূপে, মথিল মহিষরাজে। কহে প্যারী কবিরত্ব, কাঞ্চনে ফেলে কঁচে যন্থ ভজ সেই রমণীরত্ব, পদে যার মহাকাল যে। |

=

মধুকামের মুর। এই বেলা মন নেরে ডেকে, নীলাঞ্জবরণী মাকে। নিলাম নিলাম কচ্চে শমন, কখন নেবে নিলাম ডেকে ॥ কাল নিলে নিলামে ডেকে, কার শক্তি কে রাখবে ডেকে, ল’য়ে যাবে ডাকে ডাকে, তখন আর কি হবে ডেকে ॥ জ্ঞাতি বন্ধুগণে ডেকে, কায়াটা কাপড়ে ঢেকে, কঁাবে সবে ডেকে ডেকে, সাড়া কেউ পাবেন ডেকে ॥