পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৭৬০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ஆா ميامي ه" চারিদিকে হের বিরেছে কারা, শত বাঁধনে জড়ায় হে, আমি, ছাড়িতে চাহি, ছাড়ে না কেন গো, ডুবায়ে রাখে মায়ায় হে ॥ ( তারা বাধিয়া রাখে তোমার বাহুর বাধন হতে তারা বাধিয়া রাখে । ) দাও ভেঙ্গে দাও এ ভবের সুখ, কাজনেই এ খেলায় হে । আমি ভুলে থাকি যত অবোধের মত, বেলা বহে তত যায় হে ॥ (ভুলে ধে থাকি—দিন যে মিলায়, খেলা যে ফুরায় ভুলে যে থাকি ) হান তব বাজ হৃদয়-গহনে, কুপানল জ্বাল তায় হে । নয়নের জলে ভাসায়ে আমারে, সে জর্গ দাও মুছায়ে হে ॥ ( নয়নজলে তোমার হাতের বেদনা দেওয়া নয়নগুলে—প্রাণের সকল কলঙ্ক-ধোওয়া নয়নজলে ) শূন্ত করে দাও ছদয় আমার, আসন পাত সেথায় হে । তুমি এস এস নাথ হয়ে বস, ভুগোনা আমায় হে ॥ { আমার শুষ্ঠ প্রাণে, চির আনন্দ ভার থাক আমার শুষ্ঠ প্রাণে ) ॥ देमन् कणji१-७कठांण । হৃদয়-শশী ছদি গগনে উদিগ মন্ত্রশ লগনে, নিখিল মুন্দর ভুবনে, একি এ মহা মধুরিমা। ভুলি কোথা দুখ মুখরে, অপার শাস্তির সাগরে, বাহিরে অস্তরে জাগেরে, শুধুই সুধা পুৰ্ব্বণিমা। গভীর সঙ্গীত স্থলোকে, ধ্বনিছে গম্ভীর পুলকে, গগন-অঙ্গন আলোকে, উদার দীপ দীপ্তিম। চিত্তমাঝে কোন ঘন্ত্রে,কি গান মধুময় মন্ত্রে, প্রেমের কোথা পরিসীমা ॥ o , , • *." 顿 { * ー - * I , , § .ي... ل গোঁড়—মল্লার। হৃদয়ে রাখগো দেবি, চরণ তোমার। এস, মা করুণ রাণী, ও বিধু বদনখানি, হেরি হেরি আখি ভরি হেরিব আবার। এস আদরিণী রাণী সমুখে আমার। মৃদু মৃদু হাসি হাসি, বিলাও অমৃতরাশি, আলোয় করেছ আলো, জ্যোতিপ্রতিম, তুমি গো লাবণ্যলত, মূৰ্ত্তি মধুরিমা । বসন্তের বনমালা অতুল রূপের ডাল, মায়ার মোহিনী মেয়ে ভাবের আধার, ঘুসাও মনের মোর সকল অর্ণধার। আদর্শন হলে তুমি তেজি লোকালয় ভূমি, অভাগা বেড়াবে কেঁদে গহনে গহনে । হেরে মোরে তরুলতা, বিষাদে কবেন কথা, বিষয় কুমুমকুল বনফুল বনে ॥ “হা দেবি, হা দেবি” বলি গুঞ্জরি কাদিবে অলি, ঝরিবে ফুলের চোখে শিশির আমার, হেরিব জগত শুধু আঁধার অর্ধার । সরস্বতী । দীনহীন বালিকার সাজে, এসেছিনু বোর বন মাঝে, গলাতে পাষাণ তোর মন, কেন, বৎস, শোন, তাহ, শোন ! আমি বীণাপাণি, তোরে এসেছি শিখাতে গান। তোর গানে গলে যাবে সহস্ৰ পাষাণ-প্রাণ ॥ যে রাগিণী শুনে তোর গলেছে কঠোর মন, সে রাগিণী তেরি কণ্ঠে বাঞ্জিবে রে অনুক্ষণ । অধীর হইয়া সিন্ধু কাদিবে চরণ-তলে, চারিদিকে দিকবধু আকুল নয়ন-জলে। মাথার উপরে তোর কঁাদিৰে সহস্র তারা, অশনি গলিয়া গিয়া হইবে অশ্রুর ধারা। যে করুণ রসে আজি ডুবিলরে ও হৃদয়, শত জোতে তুই অহা ঢালিবি জগতময়। যেখায় হিমাদ্রি আছে সেখা তোর নাম রবে, যেখায় জাহ্নবী বহে তোর কাব্য-স্রোত ব'ৰে ! সে জাঙ্কৰী বহিৰেক অযুত হ্যায় লিী "পঞ্জি উদি।