পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


1 אין 3 ו"סןושס\ן}• তরুলতা, খামালতা, কৃষ্ণচুড়, অঁাটি ঘাটি ভুলে যুবতী ॥ অশোক অপরাজিত, রাধাপদ্ম ঝুমৃকোলত, স্বলম্বসে আকনা বাকস, বাস করে তথা, পলাশ আর পারুল, ধুতুরা মোরগ ফুল, কাটমল্লিকা লবঙ্গলতা, জগন্নাথপ্রসাদ জয়স্তি । কুরচিফুলে যায়ু না অলি, মাধবী ভুলায় যুবতী। জংলী থানাজ—কাওয়ালী। দেখ জলে দলে দলে মাছে করে খেলা । কাতলা কই মাগুর সোল হ্যাট গর্চ পুটী মৌরলা। সোণ খড়কে চাদা চিংড়ী ভোদা ভেটুকী চিতল গর্জলা। রুই মিরগেল মাছের মেরা, কালবোশ পোনা আর ট্যাংরা, বাণ বুয়াল আর পাদ বাট খয়রা খোরষোল ॥ ইলিশ মাছ মাছের রাজা গভীর জলে নিচ্ছে মজা, শঙ্কর শাল পার্শ্বে তিমি নেড়ে যায় লেজ, তেচোখে চ্যাং বেলে, গুড় গুড়ি কাতাশী বেলে, কামকেড়ে নেড়ে যায় মাথা । খেলা দেখতে পাই, ডন কুলি আর চাই, (বাশপাত পিটুলা বোল, মুড়কী বেলে পটট্যাংরা ডিমে ভরা হেরে প্রাণ জুড়াই। এর চারে টোপ নেয় না জল করে বোলা ॥ মতিলাল রায়। বৰ্দ্ধমান জেলার (পূৰ্ব্বস্থলী থানা ) ভাংশাল গ্রামে ১২৪৯ সালের ২১ এ মাঘ মতিলাল রায় জন্ম歴 করেন। ইহঁারা ববে প্রশ্রেণীর শ্রোত্রিয় ব্রাহ্মণ । ইহঁর পিতার নাম মনোহর রায়। প্রথমে গ্ৰাম্য পাঠশালায়, পরে নবদ্বীপের মিশনর স্কুলে এবং শেষে বারাশম্ভের এন্‌ট্রেন স্কুলে ইনি অধ্যয়ন করেন। পাঠদশাতেই বাঙ্গালা রচনায় ইহঁার অনুরাগ ছিল। কলিকাতা যোড়াসাঁকে পুলিশে চকৃব্রাহ্মণ গড়িয়ার ও নবদ্বীপে শিক্ষকঙা কাৰ্য্য এবং জেনারেল পোষ্ট্রাপিসে কিছুদিন ठाकूद्रेौ कब्रांद्र श्रृंद्र,-शाखांबू नहणई ऐईद्धि प्लेब्रठि সাধিত হয়। চাকুরীর সময় তিনি এক নাটক রচনা ." שא די করেন, এবং ‘প্রভাকর পত্রে কবিতা প্রভৃতি লিখিতেন। তাহ দেখিয়া, দোগেছিয়া-মিৰালী ঐযুক্ত হরিনারায়ণ রায় চৌধুরী উাহাকে এক যাত্রার দলের পালা বাধিতে বলেন। দোগেছিয়াতেই হরিনারায়ণের দলের যোগাযোগ হয় । ১২৮৯ সালে সেই দল ভাঙ্গিয়া মতিলাল রায়ের দল নবদ্বীপে প্রতিষ্ঠিত হয় । যাত্রার দল করিয়া মতি রায়ের ষ*:প্রভ1দ্বিগব।াপ্ত হয়। এক্ষণে ঐ দলের আয় হইতে তিনি কিঞ্চিৎ জমাদারী পর্য্যন্ত খরিদ করিয়াছেন । রায় মহাশয় এখন নবদ্বীপবাসী তিনি মুরসিক, মুকবি, লেখক। মুলতান-খেম্টা। শ্ৰীহরি শ্ৰীহরি হরি, হরি বল মন আমার। আর হবে না গর্ভর্যন্ত্রণা, হরিনাম কর সার। হরি বুদ্ধি হরি বল, হরি পথেরি সম্বল গতি মুক্তি ভক্তি ফল, ধৃতি স্মৃতি যুক্তি আর । গন্ধে শব্দে রূপে রসে, হরি আছেন পরশু, ধ্যান জ্ঞান চিন্তা ভাষে, জপে তপে দেখ ৰ্তার। অনলে অনিলে হরি, জল স্থল শূন্তে হরি, অণুতে অণুতে হরি, হরিময় ত্রিসংসার । হরি স্থূল হরি মৃক্ষ, কৰ্ম্মকৰ্ম্ম সুখ দুঃখ, বিপদ সম্পদ পক্ষ, আদি অন্ত পূর্ণাকার। ংসার তক্রেত তোর, মাখন সেই মাখন-চোর জ্ঞান-দণ্ডে ভক্তি-ডোর, দিয়ে কর সারোদ্ধার । গেল দিন ওরে মতি, ভাব সে কমলাপতি, চরমে পরম গতি, দিবেন শ্রীনন্দকুমার ॥ ாம்ாகத் ভরতাগ মন । y ওতো নয় নববন, রামবিচ্ছেদে-হুতাশন, করেছে রে দাহন, অযোধ্যা এবার। তাইতে এমন আকার, দিনে অন্ধকার, ( আর কি অযোধ্যায়ু সে দিন আছে, ) মেঘগর্জন নয়,—ও কেবল হাহাকার, রাজপথে এত নয়রে মেঘের জল, অযোধ্যাবাসীর চোখের জল কেবল, পথ অতি কুচল, রথচক্ৰ আচল, (রামশোকে কারো কি চলাচল আছে) দীর্ঘনিশ্বাস প্রবলবায়ু আনবার।