পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮৩৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করার কোনো প্রয়োজন নেই।


 বাঙালীর গান


কত দিনে হবে কণ্ঠ বিমোচন,
জ্ঞানঞ্জনে যাবে লোচন আঁধার।।

-

আমি মুক্তি চাইনে হরি
পড়িয়ে বিপদে, তোমার শ্রীপদে,
ভক্তি-ভিক্ষা করি !
আমি আসিব যাইব, চরণ সেবিব,
হইব প্রেম অধিকারী।।
আমার এই দাও প্রসাদ, সেবা অপরাধ,
যেন ঘটাও না বংশীধারী।
চিনি হওয়া চেয়ে, চিনি খাওয়া ভাল,
আমি দেখিলাম চিন্তা করি,
স্বাষ্টি সামিপ্য, করি লক্ষ লক্ষ,
মোক্ষ বাঞ্ছা নাহি করি ॥
সেই যমুনার কূলে, শ্রীরাসমণ্ডলে,
রহিব রাসবিহারী ॥
যেন জন্মে জন্মে আসি, হয়ে সেবা-দাসী,
চামর ব্যজন করি ॥

-

হরি তুমি দুখ দাও যে জনারে।
তার কেউ দেখে না মুখ, ব্ৰহ্মাণ্ড বৈমুখ,
দুখের উপর দুখ, সুখ নাই ত্রিসংসারে ।
ও তার ঘরে এসে ঢুকে নানা ব্যাধি,
আগে মরে তার পুত্র পৌত্রাদি,
জামতা কন্যা দৌহিত্র থাকে যদি,
ও তার পুষ্যিপুত্র নিলেও মরে।
ও তার ক্ষেত্রে হয় না শস্য, বৃক্ষে হয় না ফল,
দুগ্ধবতী গাভী দুগ্ধহীন সকল,
তার সরোবর হয় শূন্য , শুখায়ে যায় জল,
জল বিনা সব মৎস্য মরে ॥
জলে বাস করিলে জলে জ্বলে আগুন,
পোড়ে কোটা বাড়ী ছোটে টালি চূণ,
হরি তুমি যার যখন কপালে লাগানো হে আগুন,
ও তার লোহার কড়িতে ঘূণ ধরে।।
বাণিজ্য করিতে গেলাম দূরদেশে,
খাঁটি সোনা রূপা কিনলাম মেঝে ঘষে,
কপাল গুনে হয় তাঁবা দস্তা শিশে,
হীরের দরে কিনলাম জীরে।।
কোথা থেকে পাপ ঋণ এসে জোটে,
দেনার দায়ে বিকায় জায়গা জমী ভিটে,
নীলকণ্ঠ কয় বেড়াই ছুটে ছুটে
খেটে লুটে পেট না ভরে।
পূৰ্ব্বধন তার গাড়া থাকে ঘরে
অদৃষ্টেরি দোষে যায় স্থানান্তরে,
যা কিছু রয়, লয় সব চোরে,
ও তার দলিল পত্র উড়ে যায় রে।।

হরি তুমি যার হও হে আপন ।
তার কে পারে করিতে শক্রতা সাধন।।
দয়াময়, যার উপরে পড়ে তব কৃপাদৃষ্টি,
মরুভূমি মাঝে হয় যেন হে সুবৃষ্টি,(হরি হে )
তার বাসনার অতীত সুফল নিশ্চিত ফলে নিরঞ্জন
যার প্রতি প্রীতি হও চিন্তামণি,
মিষ্টভাষী বলে তারে সদা হে বাখানি, (হরি হে)
কত তার মান সম্ভ্রম, বলতে জন্মে ভ্ৰম,
তুমি কর তারে নিজ জন,
তার শত্রু কেহ হয় না তখন,
হরি তুমি দুখ দাও যে জনারে।
হয় মিত্র চারিদিকে ;—(হরি হে)
যে যায় তার বিপক্ষে,
সে নিজে করে নিজের অনিষ্ট সাধন।।
তোমার খেলা কে বুঝে দীনবন্ধু,
কার কখন শত্ৰু, কার কখন বন্ধু (হরি হে)
নীলকণ্ঠে শেষে দিও কৃপাবিন্দু,
শ্ৰীচরণে এই নিবেদন ॥

-

যে না মাতৃভক্তি জানে।
তার পাকা গুটি কাঁচে, সে ছেলে কি বাঁচে,
লেখা আছে যত যোগ পুরাণে ॥
দশমাস দশদিন গর্ভে দিয়ে স্থান,
প্রসব করে মাত, মুখে করে অন্নদান,
সেছেলে জানে না, তেমন মায়ের মান,
জ্বলতে হয় রে তাকে মনাগুণে।
পশু পক্ষীর মতো নড়তে চড়তে শিখে,
মাকে দুঃখে ফেলে আপনি যায় সুখে,
জটিলে আর কুটিলে কামিনীর কুহকে,
মাকে কাঁদায় নিশি দিনে।।