পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


a8% শ্মশানেতে ল’য়ে যাবে, সকলি পড়িয়ে রখে, স্বর বাগান বালাখানা, বাজীকরের রাজীরে। নীলকণ্ঠের এই মিনতি,হরি ভিন্ন নাই আর গতি রতি মতি ঐক্য করে, ধর গুরুর চরণ রে ॥ হরি হে আমায় চরণ ছাড়া করে না। দয়াময় আমি তোমী বই আর জানিনা। ভব কষ্টে আমার দগ্ধ হয় কাঞ্চ, শান্তিময় তব শ্ৰীচরণ ছায়ায়, লভিবারে মম মতি যায়, মিটাও স্ববাসনার ধন বাসনা। সাধন আরাধন কিছু নাই শ্ৰীহরি, নিজগুণে নির্গুণে কক্কুণা বিতরি, মনের ইচ্ছ। পুরাবে আমারি, অধীনে যেন বঞ্চনা মন চায় আমার মনোমত হতে, সখ্যভাবে সদা সখা সম্বোধিতে, খেয়ে খাওয়াইতে, আবা ফুল বলিতে, ব্রজ-রাখালের মত বাসন ! কণ্ঠ কহে দীনবন্ধু নারায়ণ, দীন দেখে কর বাসনা পুরণ, তাইতে আশা হবে সম্পূরণ, আশায় নিরাশ মোরে করে না । ছাড় মন সংসার স্বপন । মিছা এ সংসার, সকলি আসার, কেন হবে জ্বালাতন ॥ অনিত্য সংসার, অনিত্য সকল, সংসারের সার, সে নীলকমল, অহৰ্নিশি ভাব তার শ্ৰীপদকমল, আনন্দ-সাগরে হুইবি মগন। ইরি নাম, হরি ধ্যান কর অবিরাম, পুৱাইবে অভীষ্ট নবঘন খাম, দেহাস্তে দেবেন বৈকুণ্ঠেতে ধাম, কণ্ঠের বাসনা এই অনুক্ষণ ॥ ..তারে ঈশ্বর বল কিসে। গোলহি তার কোন গুণ, সরলে মির্থ", “ . . .” r ' i . ! বাঙ্গাঙ্গীর গান । ও সে জনম অবধি এত কালে, দেখি নাই মরের এত কালো, দৃষ্ট করিলে রূপ, মনে হয় বিশ্বরূপ, রাধা কিরূপে সেইরূপ ভালবাসে ॥ ও তীরে দৈবযোগেতে যদি দেখা পাই, নয়ন মুদিয়ে থাকি ফিরিয়ে ন চাই, পরে অস্তরে গেলে কালা, ঘুচে শমনের জ্বালা, তখন খোলা নয়নে চাই চারিপাশে। ও সে কি কাল গায়ে ছাই মাখে, না ছাই মাখার থাকি কাছে, নীলকণ্ঠ তারে সদাই ভালবাসে ;– ও তার ছাই মাখার সদা বাস হৃদিবাসে ॥ করে সুখী রেখেছ হে দয়াময়। সুকোমল নামটী তোমার সুকঠিন হৃদয় ॥ যে তোমার উপাসক, তাহার নাই উপমুখ, সদাই অমুখী শুক নারদাদি সমুদয় ॥ তুমি যদি ভক্তের গতি, তবে কেন ভক্তের দুৰ্গতি, তার সাক্ষ্য পশুপতি, যিনি দেব মৃত্যুঞ্জয়। দেখ দেখি হে গোবিন্দ, নন্দ কেন কেঁদে অন্ধ, বসুদেবের যে বিবন্ধ, তাহা আর জানাব কায় ॥ কণ্ঠ কহে চিন্তাময়ী, নমটী ধর দয়াময়, অন্তর তব বিষময়, পদে পদে তার পরিচয় ॥ ওরে মন দেহ সরোবরে । ওরে মন মীন, আর কতদিন । রবি বিষয়-স্রোতের উজান ধরে ॥ আশা করি রব আশা-নদীর জলে, জ্বলে দুঃখানল, দ্বিগুণ আগুণ জ্বলে, দুরন্ত কৃতান্ত ধীবরের জলে, পড়িতে হবে কালে কালেরে। পড়িলে সে জঞ্জালে কে বাচাবে প্রাণ, ঠেকিলে সে জঞ্জালে নাহি পৱিত্ৰাণ, লে যে আচক খেয়া মারে সাপটে গিয়ে ধরে, ঘাড় ভেঙ্গে খালুয়ে পোরে। যদি বল হৰ পুটী আর মেীরঙ্গ, ।