পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রায় কালীপ্রসন্ন ঘোষ । Պծ » কোন অভাগী মারের বুকে জেলছ অনল, কার বা পিপাসু প্রাণে ঢেলেছে গরল, আহা—কি বিষাদে,—কিবা সাধে, কোথায় যায় রে কার কথায় । দেহ প্রাণ আমার যেন সঙ্গে কেড়ে নিল, দেখেছি অবধি অঁখি আর না ফিরল, আমার-প্রাণের মাঝে রূপের ছায়', আলাইরা সোহিনী বাহার-একতাল। দেখে আয়, আজি জাহ্নবীর তটে, ’ কি লীলা প্রকট হইল হায় । যুগাস্তের পাপী ভক্তির উদয়ে হরি-নাম লয়ে ভবে তীরে যায় ॥ জীবের কোলাহলে জাহ্নবীর জল, তরল-তরঙ্গে করে কল কল, প্রাণে মিশে থাকৃতে চায়। ঝিঝিট-একতালা । জয় জয় জয়, কোলাহলময়, কি ভাবে রে সবে বিভোর আজ নিদায় । কি আনন্দ ধ্বনি চারি দিকে শুনি, কি উচ্ছ্বাসে সবে নাচে কঁদে গয় ॥ লোকের ভরে যেন কঁাপিছে নগর, হরি হরি বোলে হিয়া থর থর, কি আনন্দে যেন সবার অন্তর, দেহ পিঞ্জর হতে বহিরিতে চায়। পথে পথে কেহ ঢালিছে চন্দন, কেহ করিতেছে পুষ্প বরিষণ, আবার জয় জয় মধুর নিঃস্বন, হরি বোল দিয়ে মুখে সবে যায় ॥ সহস্র মৃদঙ্গে বাজে হরি বোল, হৃদয়ে হৃদয়ে তুলিয়া হিল্লেল, সহস্রের মাঝে কে রে ঐ fরাজে, ক্ষণে ক্ষণে ঢলে পড়িছে ধূলায় । ঐ বুঝি রে গোর প্রেমের মতোয়ার, প্রেমের আবেশে যেমন আত্মহারা, দুনয়নে গঙ্গা-যমুনার ধারা, পাগলের মত হরি-নাম বিলার ॥ হেলত দোলত নাচিয়া নাচিয়া, হরি-প্রেম-মুধা সবারে যাচিয়, পাপী তাপী সবে প্রেমে কোল দিয়া, পরের প্রাণে যেন পরাণ মিশায়। প্রেমের মহাযজ্ঞ হরি-সঙ্কীৰ্ত্তন, এ যজ্ঞের গুরু শ্ৰীগৌর-রতন, আহুতি জীবন, দেহ প্রাণ মন, জীবের ত্রাণ ফল হরির কৃপায়। আঁখি ছল ছল, প্রেমে ঢল চল, সে জলে বিহাের শ্ৰীগেীর রায় ॥ জগাই মধাই দুভাই ছিল নদিয়ায়, দূরে যেতে সবে যাদের শঙ্কায়, আজি তারা দেখ, ভক্তির লীলায়, লুটাইছে পথে সকলের পায়। পাপে যারা ছিল কালান্তক যম, প্রেমে আজি তারা কোমল কুমুম, কাঙ্গলের মত করপুটে নত, মুৰ্চ্ছাগত হয়ে পড়িছে ধরায় । [o দুভাইয়ের হাত নিজ হাতে তুলি, প্রেমের আবেশে পরাণে উছলি, প্রেমের অবতার, তাদের পাপভার; হ’রে নিলা হরি-নামের মহিমায়ু । নাচিল জাহ্নবী তরঙ্গে আবার, চারিদিকে হ’ল জয় জয় কার, জগতে প্রচার, পাপীর উদ্ধার, প্রেম-ভক্তির পথে প্রভুর কুপায় ॥ ললিত— আড । অরুণ-উদয়ে উষা হাসিল সলাজ হাসি — তরল কনক আভা কবি হৃদয় বিলাসী ॥ কুলায়ে ডাকিল পাখী, কমল মেলিল আঁখি, কাননে হাসিল তরু, কুমুমিত-মুধা-রাশি । অফুট আলোকে নিশি—কোথা লুকাইল নিশিকেমনে নিবিল তারা, কি ভাতিছে তমোনাশী। মৃদু বহে সমীরণ, কি মুখ করি বহন, পরশে অবশ মন আপনা হতে উদাসি ॥ মেধ পরে থরে থরে—কিবা মাধুরী বিহরে— কি শোভা ফুটিছে ধীরে, শত ভুবন বিকাশি ! র্যার এ মধুর খেলা, যার এ মোহন লীলা, হৃদয়ে ভাব রে তীরে, মুখের সাগরে ভাসি।