পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৯৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রফুল্লচন্দ্র গাঙ্গুলী। আমি আগে এসে, বাটে রইলাম বসে, ( ওহে আমায় কি পাপ করবে ন! হে ) ( আমি অধম বলে }যারা পাছে এল, আগে গেল, আমি রইলাম পড়ে ॥ যাদের পথ সম্বল, আছে সাধনের বল, ( তারা পারে গেল আপন আপন বলে হে ) ( আমি সাধনহীন তাই রলেম রূলেম পড়ে হে ) { তার নিজ বলে গেঁল চলে, অকল পারাবারে । শুনি কড়ি নাই যার, তুমি কর তারেও পার আমি সেই কথা শুনে বাটে এলাম চে ) আমি দিন ভিখারী, নাইক কড়ি, (ઈશ નિ ([[૭ || আমার পরে সম্বল, দয়াল নামটি কেবল, তাই দয়াময় ললে ডাকি তোমায়ু হে ) তাই অপমতারণ বলে ডাকি চে । কিকির কেঁদে আকুল, পড়ে আকুল পাথরে সতরে | هم أجة ડાબાંદ્રત હતિ (કાળા (નબળા ૭.૮ ও রে সকাতরে ডকুলে তারে নেবে রে পরে ॥ জায়গার কfম নাই নায়েতে, জা৩ের বিচার নাই বসিতে, (তোর কে যাবি রে, ভবপরের তরণীতে, এমন সুযোগ আর পাবিনে ) চলে নাও দ্রুত গতিতে, এক হালের জোরে | যদি নেয়ে মনে করে, বন্ধ{ও দায় নিতে পারে, (সামাঙ্গ নয় রে এ ৩রি তরির মত, এই বিশ্ব-সংসার নিতে পারে) কিন্তু, প্রেমিক ভিন্ন নেবে না রে, আসতে হয় ফিরে । ফিকির এখন ফিকির করে, ন পেয়ে নাও কেঁদে মরে, ( আমার কি হল রে ভবপরে ধাওয়া হল নী, আগে তারে প্রেম না কোরে ) ও হে দয়াময় পার কর মোরে, ডাকি কাতরে ॥ | Ե ( Տ ভাব মন অধমতারণ, সত্যশরণ, . যার নামেতে পাষাণ গলে ॥ ধিনি এই গগন তপন, পাতাল ভুবন, শৃষ্ঠ পবন, স্থলে জলে। কিবা আশ্চৰ্য্য কথন, নাই তার চরণ, সমভাবে বেড়ান চলে । যিনি এই গাছগাছড়ায় দালন কোটায়, পত্র-কুটুরে ঘরের চালে। তিনি তোর দেলের মাঝে, বসে আছে, ভাল মন্দ কথা বলে | যিনি সেই চানতাতারে, রুম সহরে, বৰ্ম্ম কাশ্মীর ঝিল নেপালে । তিনি তোর ভাতের গ্রাসে, খাটের পাশে, নাচিয়ে বেড়ান লয়ে কোলে ॥ যিনি তোর উপবীতে চাপদাড়িতে, বেদ পুরাণ কোরণ বাইবেলে। fধন তোর খোল থমকে, টোলে ঢাকে, আলখেল্লায় ফুরফুরি ঝেলে ৷ ধিনি সেই মজিদ গির্জায়, ব্রাহ্মসভায়ু, শ্মশানে কি গাছের তলে, - তিনি মোহন্ত-আখড়ায়, তুলসী-তলায়, সৰ্ব্ব স্থানে ভূমণ্ডলে । যিনি সেই ব্রহ্মপুত্র, পেডো-ক্ষেত্রে, ঘোষ-পাড়া কি বিষ্কাচলে। তিনি শ্ৰীবৃন্দাবনে, কাশীধামে, মক্কা মদিনা চিন্থলে । যিনি সেই জ্ঞাতি-হিংসায়, বিবাদ ঘটায়ু, যুদ্ধ বাধায় সন্ধি-স্থলে । তিনি যে অধীনতা, স্বাধীনতা, যা বল তা সবার মূলে। যিনি সেই গড়ের মাঠে, মনুমেণ্টে, রেলের রোডের ধূমকলে। তিনি যে নেড়ে মাথায়, জুলপ খোপায়, টাকপড়ায় কি এলবাট চুলে। ধিনি তোর ভাত ব্যঞ্জনে, চুণে পানে, দধি দুগ্ধ শাক অম্বলে। তিনিই তোর ধুতি চাদর, জামার ভিতর, কোট পেণ্টলেন শাল মলে।