প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় প্রবাহ . So o সৈন্তগণ সহ জয়নাল আবিদিনকে লইয়া সহস্র মুখে বিজয় ঘোষণা করিয়া, দীন মহাম্মদী নিশান উড়াইয়া বিজয় ডঙ্কা বাজাইয়া, সিংহদ্বার পার হইলেন । যেখানে সমাজ, সেইখানেই দল । যেখানে লোকের বসতি সেই খানেই গোলুযোগ –সেই খানেই পক্ষাপক্ষ। সঙ্গে সঙ্গে হিংস, শক্ৰত মিত্রত, আত্মীয়ত, বাধ্যবাধকতা। যেমন এক হস্তে তালী বাজিবার কথা নহে। দলাদলী না থাকিলেও কথা জন্মিবার কথা নহে। কথা জন্মিলেই পরিচয়, স্বপক্ষ বিপক্ষ সহজেই নির্ণয়। সে সময় খুজিতে হয় না—কে কোন পথে, কে কেন্নুন দলে ।

  • এজিদ দামস্কের রাজা। প্রজা মাত্রই যে মহারাজুগত—মস্তরেব সহিত বাজামুগত—সকলেই যে তাহাব অনুগত, তাহা নহে । সকলেই যে র্তাহার হঃখে দুঃখিত, তাহা নহে। দামস্ক সিংহাসন পরপদে দলিত হইল ভাবিয়া সকলেই যে দুঃখিত হইয়াছে, সকলের হৃদয়েই যে অণঘাত লাগিয়াছে, চক্ষের জল ফেলিয়াছে, তাহাও নহে। অনেকেই হাজরাত মাৰিয়ার পক্ষীয়, প্ৰভু হাসেন হোসেনের ভক্ত। পূৰ্ব্ব হইতেই রহিয়াছে। আজ পরিচয়ের দিন । পরীক্ষার দিন। • সহজে নিৰ্ব্বাচন করিবার এই উপযুক্ত দময় ও অবসর।

জয় ঘোষণা এবং বিজয় বাজনার তুফু রবে নগরবাসীর ভয়ে অস্থির হইল । কেহ পলাইবার চেষ্টা করিল, পারিল না"। কেহ যথা সৰ্ব্বস্ব ছাডিয়৷ জাতি মান প্রাণ বিনাশ ভয়ে, দীন দরিদ্র বেশে গৃহ হইতে বহির্গত হইলেন। কেন্স ফকির দরবেশ, কেহ সন্তাসী রূপ ধারণ করিয়া জন্মভূমিব মায় পরিত্যাগ করিলেন । কেহ9আনন্দ-বেগ ,সম্বৰণে उञ*ांत्र१ ईक्लग्न। सञ्च खब्रनोंदत আবিদিন মুখে উচ্চারণ করিতে করিতে জাতীয় সম্ভাষণ, জাতীয় ভাব প্রকাশ করিয়া, গাজী রহমানের দলে মিশিয়া চির শত্রু বিনাশের বিশেষ স্ববিধ করিয়া লইলেন । কাহার মনে দারুণ আঘাত লাগিল। *জয় জয়নাল আবিদিন” কথাগুলি বিশাল শৈল-সম অন্তরে ৰিধিয়া পড়িল। কর্ণেও বাজিল। সাধ্য নাই, নগৰু রক্ষীর কোন উপায় নাই। রাজবলের কোন লক্ষণইঙ্গাই । আর উপায় কি ? পলাইয় প্রাণরক্ষণ, করাই কৰ্ত্তব্য , যথাসাধ্য পলায়নের উপায় দেখিতে লাগিলেন। যাহারা জয়নাল জাবিদিনের দলে মিশিল না, কাফের বৰে মুগলর হইল না, পলাইবারও উপায় পটুন না। তাদের